১২ নভেম্বর ২০১৯

মেয়ের জামাইকে বাঁচাতে গিয়ে লাশ হলেন শ্বাশুড়ি

-

মেয়ে জামাইয়ের বাড়ীতে বেড়াতে এসে লাশ হয়ে ফিরলেন শ্বাশুড়ি খাদিজা বেগম (৬০)। জামাতা নাসির উদ্দিনকে (৩৫) বাঁচাতে গিয়ে তিনি মারা যান। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার রাত ৮টার দিকে আমতলী পৌর শহরের বাসুগী এলাকায়।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, পৌর শহরের বাসুগী এলাকার মোঃ নাসির উদ্দিন সরদার ঘটনার সময় বসত ঘরে ঢুকতে গেলে তার হাতে থাকা টর্চ লাইটটি মাটিতে পড়ে যায়। তিনি সেটা তুলে দাঁড়ালে বসত ঘরের বিদ্যুৎ লাইনের তারের সাথে তার মাথা স্পর্শ করে। এতে নাসির বিদ্যুতায়িত হয়ে পড়ে ডাক চিৎকার দিতে থাকে। এ সময় মেয়ে জামাইয়ের বাড়ীতে বেড়াতে আসা শ্বাশুড়ি খাদিজা বেগম জামাতাকে বাঁচাতে এগিয়ে এসে তিনিও বিদ্যুতায়িত হয়ে পড়েন। তখন স্থানীয়রা বিদ্যুৎ অফিসের সাব স্টেশনে ফোন দিয়ে পৌর শহরের বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করেন।

স্বজন ও স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় শ্বাশুড়ি ও জামাতাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। কর্তব্যরত চিকিৎসক শ্বাশুড়ি খাদিজা বেগমকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত জামাতাকে আশংকাজনক অবস্থায় পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

নিহত খাদিজা বেগম পটুয়াখালী জেলার দুমকী উপজেলার আঃ বারেকের স্ত্রী। তিনি ১০/১৫ দিন পূর্বে মেয়ে জামাই নাসির উদ্দিন সরদারের বাড়ীতে বেড়াতে আসেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ শাকিলা আক্তার বলেন, হাসপাতালে নিয়ে আসার পূর্বেই খাদিজা বেগম মারা গেছেন।

আহত জামাতা নাসির সরদারের স্ত্রী সুমী আক্তার কান্নাজড়িত কন্ঠে জানান, আমার স্বামীকে বাঁচাতে গিয়ে আমার মা বিদ্যুতায়িত হয়ে মারা গেছেন।

আমতলী থানার ওসি মোঃ আবুল বাসার বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে। স্বজনদের আবেদনের প্রেক্ষিতে লাশের ময়না তদন্ত না করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।


আরো সংবাদ