২২ অক্টোবর ২০১৯, ৭ কার্তিক ১৪২৪, ১ সফর ১৪৩৯

বোরকা পরিহিত মিন্নির ছবি তোলা ব্যক্তিটি কে?

বোরকা পরিহীত মিন্নির ছবি তোলা ব্যক্তিটি কে ? - ছবি : নয়া দিগন্ত

বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার অভিযোগপত্রের শুনানির দিনে আদালত প্রাঙ্গণে নিরাপত্তাবেষ্টনী ছিল চোখে পড়ার মতো। মামলার শুনানি ঘিরে নিরাপত্তা জোরদারের জন্য সকাল থেকেই অতিরিক্ত পুলিশ ও সাদা পোশাকের বাহিনীর সদস্যরাও দায়িত্ব পালন করেছেন।

বরগুনা জেলা কারাগারে থাকা এ মামলার অপর সাত অভিযুক্তকে আদালতে হাজির করে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকালে অভিযোগপত্রের শুনানি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও মামলার মূল নথি জেলা ও দায়রা জজ আদালতে থাকায় শুনানি অভিযোগপত্র শুনানির জন্য দুপুর ২টায় সময় নির্ধারণ করেন আদালত।

রিফাতের স্ত্রী মিন্নি তার বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোরের সাথে মোটরসাইকেলে চড়ে আদালতে আসেন। এরপর আদালতের কার্যক্রম শুরু হওয়ার আগ পর্যন্ত বাবার সাথেই আদালতের একটি কক্ষে অবস্থান করেন তিনি। আদালতে মিন্নির হাজির হওয়ার বিষয়টি আগে থেকেই গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে আদালত প্রাঙ্গণে মিন্নিকে দেখার জন্য ভিড় জমায় উৎসুক জনতা।

এ সময় সবার চোখ পড়ে ওই ব্যক্তির দিকে। দেখা যায় হাতে-পায়ে মোজাসহ বোরখা পরিহিত ওই ব্যক্তি মিন্নির খুব কাছ গিয়ে ছবি তুলছেন। মিন্নি আদালতে থাকা পর্যন্ত সাংবাদিকদের সঙ্গে ধাক্কাধাক্কি করে মিন্নির ছবি তোলেন তিনি। বিষয়টি নিয়ে সন্দেহ হয় স্থানীয় সাংবাদিকদের। সর্বাঙ্গ ঢেকে মিন্নির ছবি তোলা ওই ব্যক্তি ‘নারী নয় বরং পুরুষ’ এমনটিও বলেছেন কেউ কেউ। তবে ওই ব্যক্তির পরিচয় এখনও জানা যায়নি। এমনকি স্থানীয় সাংবাদিক ও মিন্নির পরিবারের সদস্যরাও ওই ব্যক্তিকে চিনতে পারেননি।

মিন্নির বাবা মো. মোজাম্মেল হোসেন কিশোর বলেন, আমি যখন মিন্নিকে নিয়ে আদালত থেকে বের হতে ছিলাম ঠিক তখনই বোরকা পরিহিত একজনব্যক্তি আমার মেয়ে মিন্নির কাছে এসে ছবি তোলা শুরু করে। তাকে দেখে ধর্মপ্রাণ নারী মনে হলেও তিনি যেভাবে মিন্নির কাছে এসেছেন, সেটা তার পোশাকের সাথে একদমই মানাইনি। আদালত প্রাঙ্গণে ওই ব্যক্তির কার্যকলাপ দেখে আমার সন্দেহ। বোরকা পরা হলেও ওই মানুষটিকে আমার পুরুষ সন্দেহ। পুলিশকে এ বিষয়ে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়ার দাবী জানিয়েছেন।

এবিষয়ে বরগুনা সদর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবির মোহাম্মদ হোসেন নয়াদিগন্তকে বলেন, বিষয়টি আমাদের জানা ছিলনা। আপনাদের কাছ থেকে শুনলাম। খোঁজ-খবর নিয়ে বিষয়টি খতিয়ে দেখবো।


আরো সংবাদ




portugal golden visa
paykwik