২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

মাছ ধরার শখ ডেকে আনলো করুণ মৃত্যু

ছোটবেলা থেকেই ঢাকায় বসবাস। গ্রামে এসেই হঠাৎ শখ হয় মাছ ধরার। সেই শখের বসেই মাছ ধরার যাত্রা। কিন্তু, কে জানতো প্রথম যাত্রাই হবে তার শেষ যাত্রা। পরিবার হারালো প্রিয়জনকে। শখের বসে মাছ ধরতে গিয়ে পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার আগুনমুখা নদীতে স্বপন হোসেন নামের এক তরুণের ট্রলার ডুবির ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে। যদিও ওই ট্রলারের তিন জেলেকে জীবিত উদ্ধার করা হয়।

নিহত স্বপন উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের কাউখালী গ্রামের জেলে হারুন মিয়ার ছেলে। তিনি শখ করে ওই গ্রামের চাচা কালু রাঢ়ীর মালিকানাধীন জেলে ট্রলারের জেলেদের সঙ্গে রোববার সন্ধ্যায় মাছ ধরতে আগুনমুখা নদীতে গিয়েছিলেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সোমবার দুপুরে ট্রলার মালিক কালু রাঢ়ী বলেন, স্বপন আমার খালাতো ভাইয়ের ছেলে। ছোটবেলা থেকে ঢাকায় থাকতো। এলাকায় এসে স্বপন শখ করে আমার ট্রলারের জেলেদের সঙ্গে নদীতে মাছ ধরতে যায়। কিন্তু রোববার রাত আড়াই টার দিকে ঢেউয়ের তোড়ে তিন জেলেসহ স্বপনকে নিয়ে ট্রলারটি ডুবে যায়। এসময় ট্রলারে থাকা তিন জেলে সাঁতরে তীরে আসে। কিন্তু স্বপন তেমন সাঁতার না জানায় মারা যান। পরে সোমবার ভোরে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

এ ব্যাপারে রাঙ্গাবালী থানার ওসি (তদন্ত) মোস্তফা কামাল বলেন, স্বপন পেশায় জেলে ছিল না। শখ করে জেলেদের সঙ্গে মাছ ধরতে গিয়েছিল। তার লাশ উদ্ধার করে নিজ বাড়িতে আনা হয়েছে।


আরো সংবাদ