২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

স্কুল শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ চেষ্টায় ভিডিপি দলনেতা গ্রেফতার

বরিশালের উজিরপুরে টাকা দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে দ্বিতীয় শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে শাহ আলম মোল্লা (৫২) নামে এক ইউনিয়ন ভিডিপি দলপতিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এর আগে স্থানীয়রা অভিযুক্ত শাহ আলমকে ওই স্কুল শিক্ষর্থীকে ধর্ষণ চেষ্টাকালে হাতেনাতে ধরে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

গ্রেফতারকৃত শাহ আলম মোল্লা উপজেলার জল্লা ইউনিয়নের ভিডিপি দলপতি এবং ওই এলাকার মৃত তেলাম হোসেন মোল্লার ছেলে। বৃহস্পতিবার (০৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলার জল্লা ইউনিয়নের বাহেরঘাট বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ওই শিশুর বাবা অভিযুক্ত ভিডিপি দলপতির বিরুদ্ধে উজিরপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের করে। পরবর্তীতে পুলিশ শুক্রবার দুপুরে গ্রেফতারকৃতকে বরিশাল আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠিয়েছে।

মামলা ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির ওই শিক্ষার্থী বৃহস্পতিবার সকালে স্কুলে যায়। বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ওই শিক্ষার্থী শ্রেণীকক্ষের বাইরে গেলে তার হাতে ১০ টাকা দিয়ে ভিডিপি কর্মচারী শাহ আলম স্কুলের পাশেই তার লন্ড্রি দোকানে ডেকে নিয়ে যায়। পরে দোকান ঘরের দোতলায় নিয়ে আটকে ওই শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায় শাহ আলম।

এ সময় শিশুটি ডাক-চিৎকার দিলে স্থানীয় কুদ্দুসসহ অনেকে ঘটনাস্থলে গিয়ে শিশুটিকে উদ্ধার করে এবং অভিযুক্ত শাহ আলমকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে উজিরপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শিশির কুমার পাল জানিয়েছেন, অভিযুক্তকে আদালতের মাধ্যমে শুক্রবার দুপুরে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। এদিকে ঘটনাটি পুরোপুরি ষড়যন্ত্রমূলক দাবি করে উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা শাহিনুর রহমান জানিয়েছেন, ‘অভিযুক্ত শাহ আলম মোল্লা ওই ইউনিয়নের সরকারি ভাতাভোগী ভিডিপি দলপতি। কিন্তু বিভিন্ন মিডিয়ায় ভুল তথ্যের ভিত্তিতে শাহ আলমকে আনসার কমান্ডার হিসেবে প্রচার করা হয়েছে।’

এই কর্মকর্তা আরও জানান, ‘বিষয়টি শোনার পরে তিনিসহ বরিশাল জেলা সহকারী কমান্ড্যান্ট রকিব উদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। প্রাথমিক তদন্তে তারা জানতে পেরেছেন বাহেরঘাটের স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের জমি নিয়ে সেখানকার কুদ্দুস নামের এক ব্যক্তির সাথে দীর্ঘদিনের বিরোধ চলছে। এনিয়ে কুদ্দুসের বিরুদ্ধে আদালতে একটি মামলাও চলমান রয়েছে এবং সেই মামলার প্রধান সাক্ষী ভিডিপি দলপতি শাহ আলম। এ কারণেই ভিডিপি সদস্য শাহ আলমকে ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানো হয়েছে।’

 


আরো সংবাদ