১৬ অক্টোবর ২০১৯

পাওনা টাকা চাওয়ায় মারধর, দোকান লুটের অভিযোগ

পাওনা টাকা চাওয়ায় মারধর, দোকান লুটের অভিযোগ - নয়া দিগন্ত

বরগুনার পাথরঘাটায় দোকানে বাকি নিতে আসলে আগের পাওনা টাকা চাওয়ায় না দিয়ে উল্টো মারধর করে মাথা ফাটিয়ে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ৪জন আহত হয়েছেন। আহতদের পাথরঘাটা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। সোমবার (১৯ আগস্ট) বিকেলে উপজেলার রায়হানপুর ইউনিয়নের সিএন্ডবি বাজারে এই ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলো- ওই ইউনিয়নের বেতমোর গ্রামের আব্দুল মান্নান হওলাদারের ছেলে জামাল হোসেন (৫০), জাকির হোসেন (৪২), জামাল হোসেনের ছেলে পারভেজ (২২) ও ভাগ্নে রাকিব (১৬)।

দোকান মালিক জাকির ও তার ভাই জামাল জানান, সোমবার দুপুরের পর ফারুক সরদার তাদের দোকানে বাকি নেয়ার জন্য আসলে জাকির এক বছর আগের পাওনা টাকা চায়। এসময় ফারুক পাওনা টাকা দিবে না বলে হুশিয়ারি দিয়ে চলে যায়। এর কিছুক্ষণ পরেই ফারুক, মিরাজ, রিয়াজ, সজিব, আনোয়ার, রফিকুল, রুহুল আমিন, রুস্তুম ও জাফরসহ প্রায় ১০ থেকে ১৫জন লোক লাঠিসোটা নিয়ে দোকানের মধ্যে ঢুকে জাকিরকে মারধর করতে থাকে। এসময় জাকিরের ভাই জামাল, তার ছেলে পাভেজ ও ভাগ্নে রাকিব জাকিরকে রক্ষা করতে এগিয়ে আসলে তাদেরকেও মারধর করে দোকানে রাখা প্রায় ৪৫ হাজার টাকা নিয়ে যায় এবং সন্ধ্যার পর আবারো হামলা করার হুমকি দেয়। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে পাথরঘাটা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

প্রতক্ষ্যদর্শী নুরুল ইসলাম ও মহারাজ জানান, আমাদের সামনেই দোকানের মধ্যে জাকিরসহ অন্যদের গরুর মত পিটিয়ে তাদের মাথা ফাটিয়ে ফারুক ও তাদের লোকজন চলে গেছে। তারা গ্রামে লাঠিয়াল বাহিনী হিসেবেও পরিচিত, কেউ তাদের বিরুদ্ধে কথা বললেই তারা দলবদ্ধ হয়ে মারধর করে তাই ভয়ে স্থানীয় লোকজন মুখ খুলতে চায় না।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ফারুক সরদারের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে পরে কথা বলবেন বলে লাইন কেটে দিয়ে মোবাইল বন্ধ করে রাখে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য শানু মিয়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, আমি পাথরঘাটা বাজার থেকে এসে মারধরের ঘটনা শুনেছি। দুই পক্ষের কেউ আমার কাছে কোন অভিযোগ করেনি।

পাথরঘাটা থানার ওসি মোঃ সাইদুল ইসলাম জানান, পাথরঘাটা থানায় দুই পক্ষ থেকে দুটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। উভয়পক্ষের লোক আহত হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।


আরো সংবাদ




astropay bozdurmak istiyorum