১৫ অক্টোবর ২০১৯

বরিশালে স্বর্ণমেলা

সারাদেশের মতো বরিশালেও প্রথমবারের মতো স্বর্ণমেলা শুরু হয়েছে। যেখানে ব্যবসায়ীরা অপ্রদর্শিত স্বর্ণ বৈধ করার সুযোগ পাবেন। সোমবার (২৪ জুন) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরিশাল নগরের বান্দরোডের হোটেল গ্রান্ড পার্কে বেলুন-ফেস্টুন ও পায়রা উড়িয়ে দু'দিনব্যাপী এ মেলার উদ্বোধন করেন সিটি করপোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ। পরে তিনি হোটেল গ্রান্ড পার্কের সাউথ গেট হলের মেলা প্রাঙ্গণে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।

এ সময় মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ বলেন, মেলার মাধ্যমে সরকারের রাজস্ব বাড়বে। পাশাপাশি সরকার থেকে স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের সহযোগিতা করা হয়েছে। আশা করি, তারাও সরকারের ডাকে সাড়া দেবেন। সবার সহযোগিতাই দেশের উন্নয়নকে এগিয়ে নেওয়া যেতে পারে।

বরিশাল কর অঞ্চলের কর কমিশনার খাইরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- ঢাকার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য (শুল্ক ও ভ্যাট প্রশাসন) সাইফুল ইসলাম, দি বরিশাল চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিস ও বরিশাল সদর উপজেলার চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টু এবং বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি বরিশাল জেলা শাখার সভাপতি শঙ্কর কর্মকার।

এ সময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- বরিশাল কর অঞ্চলের যুগ্ম কর কমিশনার লুৎফর রহমান, উপ-কর কমিশনার আবুল কালাম আজাদ, বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি বরিশাল জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মোহামদ আলী খান জসিমসহ স্বর্ণ ব্যবসায়ী ও স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তারা।

খাইরুল ইসলাম জানান, এটির নাম স্বর্ণমেলা দেওয়া হলেও প্রকৃত পক্ষে ব্যবসায়ীদের অপ্রদর্শিত স্বর্ণ ও স্বর্ণালংঙ্কার, কাট ও পোলিশ ডায়মন্ড এবং রূপার মজুদের পরিমাণের ভিত্তিতে কর পরিশোধের পরে তা প্রদর্শনের সুযোগ পাবেন। এক্ষেত্রে কর বিভাগ ব্যবসায়ীদের কাছে কোনো ধরনের প্রশ্ন তুলবে না।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি বরিশাল জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলী খান জসিম বলেন, দীর্ঘদিনের চেষ্টার ফলে আমরা স্বর্ণ ব্যবসার স্বীকৃতি পাচ্ছি। সম্প্রতি সরকার আমাদের জন্য একটি নীতিমালা নিয়ে কাজ করছে। যার আওতায় এ স্বর্ণমেলার আয়োজন। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) আমাদের সহযোগিতা করছে। স্বর্ণমেলায় ভরিপ্রতি এক হাজার টাকা দিয়ে অপ্রদর্শিত স্বর্ণ বৈধ করা যাবে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড কর অঞ্চল বরিশালের আয়োজনে এ মেলায় সাতটি স্টল রয়েছে। যার তিনটি স্টলে বরিশাল বিভাগের ছয় জেলার স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা ঘোষণাপত্র গ্রহণ করতে পারবেন। এছাড়া জনতা-সোনালী ব্যাংকের দু’টি আলাদা স্টল এবং একটি হেল্প ডেস্ক ও একটি স্টলে ১২ ডিজিট টিআইএন গ্রহণ করার জন্য ব্যবস্থা রয়েছে।


আরো সংবাদ




astropay bozdurmak istiyorum