২৭ জুন ২০১৯

আগৈলঝাড়ায় দেবরের বিরুদ্ধে ভাবীর ধর্ষণ মামলা

ধর্ষণ
দেবরের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করেছেন ভাবী - নয়া দিগন্ত

বরিশালের আগৈলঝাড়ায় দেবরের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন ভাবি। থানাকে এজাহার হিসেবে গ্রহণ করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

আদালতে দায়ের করা ধর্ষণ মামলার বাদী এইচএসসি পরীক্ষার্থী ওই নারী অভিযোগ করেন, উত্তর শিহিপাশা গ্রামের সৈয়দ জিল্লুর রহমানের ছেলে সৈয়দ বখতিয়ারের সাথে ২০১১ সালের ১৭ মে তার বিয়ে হয়। বিয়ের কিছু দিন পরে বাদীর উপর কুদৃষ্টি পড়ে তার দেবর সৈয়দ রাজীবের। বিষয়টি বাদী স্বামী ও শ্বশুর শাশুড়িকে জানালেও তারা এ বিষয়ে কোনো ভ্রƒক্ষেপ করেনি।

এরই মধ্যে বাদীর কাছে তার স্বামী যৌতুক দাবি করায় বাদী যৌতুক মামলা দায়ের করেন। যৌতুক মামলা দায়েরের পর থেকেই বাদী তার বাবার বাড়ি এসে থাকতে শুরু করেন। যৌতুক মামলা প্রত্যাহারের অজুহাতে দেবর রাজীব প্রায়ই বাদী ভাবীর বাড়ি যাতায়াত করতো। বাদীর বাড়ি যাতায়াতের সুযোগে গত ২৭ মার্চ রাতে বাদী বাড়িতে একা থাকার সুযোগে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে দেবর রাজীব।

ধর্ষণের কারণে বাদী অসুস্থ হয়ে পড়লে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালের ওসিসিতে ভর্তি হন তিনি। চিকিৎসকেরা তার ডাক্তারী পরীক্ষা সম্পন্ন করে বাদীকে মামলা দায়েরের পরামর্শ দিলে সেখানে পাঁচ দিন চিকিৎসা গ্রহণ শেষে এইচএসসি পরীক্ষা দেয়ার জন্য বাদী বাড়ি ফিরে বৃহস্পতিবার বরিশাল নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালে দেবর রাজীবের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন (এমপি-৬০)।

আদালতের বিচারক আবু শামীম আজাদ বাদীর অভিযোগ আমলে নিয়ে আগৈলঝাড়া থানাকে এজাহার গ্রহণ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেনন।

আগৈলঝাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: আফজাল হোসেন সাংবাদিকদের জানান, আদালতের নির্দেশের প্রেক্ষিতে আজ শুক্রবার সকালে বাদীর অভিযোগ হাতে পেয়ে তিনি মামলা রেকর্ড করেছেন। আগৈলঝাড়া থানার মামলা নং-৩ (৫.৪.১৯)। আসামি গ্রেফতারে পুলিশ চেষ্টা চালাচ্ছে।

আরো পড়ুন :
দেবর-ভাবির প্রেমে প্রাণ হারালেন আপন ভাই
নয়া দিগন্ত অনলাইন, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮
রাজধানীর বাড্ডায় সাতারকুল এলাকায় দেবর-ভাবীর অবৈধ পরকীয়ায় প্রাণ হারালেন স্বামী মনিরুজ্জামান মনির ওরফে মনু।
জানা যায়, দেবর-ভাবীর দীর্ঘ দিনের অবৈধ সম্পর্কের মাঝের কাটা মনিরকে সরানোর জন্য হত্যার পরিকল্পনা করেছিল নিজ ছোট ভাই আজমল হক মিন্টু ও স্ত্রী কাজল রেখা। হত্যার জন্য তারা ভাড়া করেছিল ঢাকার তিনজন ভাড়াটে খুনিকে।

শনিবার সকাল ১১টায় গুলশান উপ-পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ে এ বিষয়ে তথ্য জানান গুলশান বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) এস এম মোস্তাক আহমেদ খান বিপিএম, পিপিএম।

হত্যা মামলা তদন্ত সম্পর্কে ডিসি গুলশান বলেন, মামলাটি তদন্তকালে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে বাড্ডা থানা পুলিশ ঘটনার প্রকৃত রহস্য উদঘাটন করেছে। সেই সাথে এই হত্যার অন্যতম পরিকল্পনাকারী মৃত মনিরের স্ত্রী কাজল রেখাকে (৩০) গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের পর বিজ্ঞ আদালতে কাজল রেখা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। পরবর্তী সময়ে রেখার প্রদত্ত স্বীকারোক্তিমূলে হত্যার পরিকল্পনাকারী ও এই হত্যাকাণ্ডে ভাড়াটে তিনজন খুনিকে গ্রেফতার করে বাড্ডা থানা পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলো- আজমল হক মিন্টু, কাজল রেখা, আব্দুল মান্নান, সোহাগ ওরফে শাওন ও ফাহিম। গ্রেফতারের সময় তাদের নিকট হতে হত্যায় ব্যবহৃত ২টি চাকু (সুইচ গিয়ার), মৃতের ব্যবহৃত মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।

তদন্তকালে হত্যার কারণ সম্পর্কে জানা যায়, মৃত মনিরের স্ত্রী কাজল রেখার সাথে মনিরের আপন ছোট ভাই আজমল হক মিন্টুর ৮/৯ বছর যাবৎ অবৈধ পরকীয়া সম্পর্ক চলছিল। তাদের এই সম্পর্ক স্থায়ী করতে একমাত্র পথের কাটা স্বামী মনিরকে হত্যার পরিকল্পনা করে স্ত্রী কাজল ও নিজ ছোট ভাই মিন্টু। হত্যা করার পরিকল্পনা হিসেবে তারা এক লাখ টাকার ‍চুক্তিতে ঢাকার তিনজন খুনিকে ভাড়া করে। অগ্রিম হিসেবে তাদেরকে ৩০ হাজার টাকা দেয় তারা। পরিকল্পনা অনুযায়ী ভাড়াটে খুনিরা মনিরকে হত্যা করে।

পরিকল্পিতভাবে খুন করে খুনের দায় এড়ানোর জন্য আজমল হক মিন্টু নিজে বাদী হয়ে গত ৮ সেপ্টেম্বর বাড্ডা থানায় অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করে। পরবর্তী সময়ে বাড্ডা থানা পুলিশ ঘটনার প্রকৃত রহস্য উদঘাটন করে মিন্টুর করা মামলা নিষ্পত্তি করে পুলিশ বাদী হয়ে আটককৃত আসামিদের বিরুদ্ধে গত ১৪ সেপ্টেম্বর বাড্ডা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছে।

উল্লেখ্য, গত ৮ সেপ্টেম্বর সকাল পৌণে ৮টায় বাড্ডা থানাধীন সাতারকুলস্থ ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির পশ্চিম দিকে হিন্দু পাড়ার খোলা মাঠে পায়ে চলাচলের রাস্তায় গলা এবং পেটে ছুরিকাঘাত করা একটি অজ্ঞাতনামা লাশ উদ্ধার করে বাড্ডা থানা পুলিশ। লাশের সুরতহাল রিপোর্ট প্রস্তুত করে ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরবর্তী সময়ে মৃতের আত্মীয়-স্বজন ও ছোট ভাই আজমল হক মিন্টু ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে লাশটি সনাক্ত করে এবং বাড্ডা থানায় এসে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। সূত্র : ডিএমপি নিউজ


আরো সংবাদ

সরকারি কর্মকর্তাদের আবারো পেটানোর হুমকি সেই এমপির কোহলি-গেইল লড়াইয়ের ফলাফল কী হবে? যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে জোট গড়ছে রাশিয়া-ভারত-চীন! বিপজ্জনক পরিণতির দিকে মার্কিন-ইরান উত্তেজনা   ৯২ বিশ্বকাপের অবাক করা পুনরাবৃত্তি : ইতিহাসে উদ্দীপ্ত পাকিস্তান হোটেলে রাতে কেঁদে ফেললেন সরফরাজের স্ত্রী ভারতের বিপক্ষে চাপ নিতে চান না মিরাজ স্ত্রীর সামনে স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা : বীভৎসতায় বিমূঢ় সামাজিক মাধ্যম আগামীতে মানববর্জ্য ব্যবস্থাপনা বড় চ্যালেঞ্জ : এলজিআরডি মন্ত্রী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে শক্তিশালী করলেই স্বাস্থ্য ব্যবস্থার কাক্সিক্ষত উন্নয়ন সম্ভব সুপ্রিম কোর্টের ডিএজি ও এএজিদের পদত্যাগের আহ্বান আইনমন্ত্রীর

সকল