১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮
গভীর সমুদ্রে ট্রলার ডুবি

তিন দিনেও মিলেনি ৩ জেলের সন্ধান, উদ্ধার অভিযানে নৌবাহিনীর তিন জাহাজ

-

গভীর সমুদ্রে মাছ ধরার সময় সিমেন্টের কাঁচামালবাহী এমভি নাসির জামান নামে একটি বাণিজ্যিক জাহাজের সাথে সংঘর্ষে ডুবে যাওয়া এফবি স্বাধীন-৩ নামের ট্রলার ও নিখোঁজ ৩ জেলের অনুসন্ধান চালাচ্ছে নৌবাহিনী। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ট্রলারসহ ৩ জেলের সন্ধান পায়নি উদ্ধার অভিযানে থাকা নৌবাহিনী।

এর আগে গত সোমবার সুন্দরবন কেন্দ্রিক বঙ্গোপসাগরের ফেয়ারওয়েবয়া এলাকায় ভোরে দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে গভীর সমুদ্রে টহলরত নৌবাহিনী জাহাজ তুরাগ ট্রলারটিকে উদ্ধারের জন্য তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থলে পৌঁছে ভাসমান অবস্থায় ৯জন জেলেকে জীবিত উদ্ধার করে। স্বাধীন-৩ নামে উক্ত ট্রলারটিতে মোট ১২ জন জেলে ছিল।

নিখোঁজ ৩ জেলেরা হলো, মো. বাবুল (৫০), দিপু (৩০) ও আ. খালেককে (৫৬)। উদ্ধারে নৌবাহিনী জাহাজ তুরাগ, মেঘনা ও নিশান নিরবিচ্ছিন্ন উদ্ধার তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে।

উদ্ধারকৃত জেলেরা হলো মো. হানিফ (৪০), মো. আবুল কালাম (৪২), মো. জাকির হোসেন (৪৭), মো. সুজন (২৮), মো. রুবেল (২৮), মো. মুসা (২২), মো. জাকারিয়া (১৬), মো. কবির (৪২), এবং মো. মনির (২০)।

উদ্ধারকৃত ও নিখোজদের সবার বাড়ি বরগুনা জেলার পাথরঘাটা উপজেলার কাঠালতলী ইউনিয়নে। উদ্ধারকৃত জেলেদের নৌবাহিনীর মেডিকেল টিম কর্তৃক জাহাজ তুরাগে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে এবং নৌবাহিনীর পক্ষ থেকে পাথরঘাটা উপজেলার কাঠালতলী ইউনিয়নের ইউপি সদস্য মো. জাহাঙ্গীর হোসেনের নিকট ইতোমধ্যেই হস্তান্তর করা হয়েছে।

নৌবাহিনীর লে. কমান্ডার ফয়সাল সাংবাদিকদের জানান, ইতোমধ্যেই জীবিত উদ্ধারকৃত ৯ জেলেকে চিকিৎসা দিয়ে স¦জনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। নিখোঁজ জেলেদের অনুসন্ধান অব্যহত রয়েছে।

এদিকে বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী জানান, এফবি স্বাধীন-৩ ট্রলারের মালিক মো. মোস্তফা মিয়া পাথরঘাটা থানায় মঙ্গলবার একটি সাধারণ ডায়েরী (জিডি) করেন। যার নাম্বার- ৫৭৬।


আরো সংবাদ