২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

গৌরনদীতে ভাসমান পাটের হাট

-

ভৌগলিক অবস্থানগত কারণে প্রায় ৫০ বছরের ঐতিহ্য ধরে রেখেছে জেলার তিনটি উপজেলার সীমান্তবর্তী গৌরনদীর সরিকল হাটের পাশ্ববর্তী খালে সোনালি আঁশের ভাসমান পাটের হাট। পাটের পর্যাপ্ত সরবরাহ ও অধিক মুনাফাপ্রাপ্তি এবং নদী বেস্টিত হওয়ায় নদীপথে মালামাল বহনে সহজ হওয়ার কারণে তিন উপজেলাবাসী ও দূরের ব্যবসায়ীদের কাছে এ হাটটির ব্যাপক গুরুত্ব বেড়েছে।
বাবুগঞ্জ, মুলাদী ও গৌরনদী উপজেলার সীমান্তবর্তী ঐতিহ্যবাহী সরিকল হাটটি সপ্তাহে দুইদিন (মঙ্গল ও শুক্রবার) বসে। বিশেষ করে এ অঞ্চলে ব্যাপক পাট উৎপাদন হওয়ায় কৃষক পর্যায়ে পাটের সরবরাহ অনেক বেশী। স্থানীয় পাইকারী বিক্রেতারা জানান, সপ্তাহের প্রতি হাটে এখানে অর্ধকোটি টাকার পাট ক্রয়-বিক্রয় হয়। বিভিন্ন উপজেলা থেকে আসা পাট বিক্রেতারা জানান, খালের পারে হাট বসায় এবং খুব সহজে নৌযানে যোগাযোগ করতে পারায় বিক্রেতা নৌকা ও ট্রলারযোগে এবং দুরদুরান্ত থেকে পাইকারী পাট ব্যবসায়ীরা ট্রলার নিয়ে পাট ক্রয় করতে আসায় এখানে ক্রেতা-বিক্রেতারা ট্রলারের উপর বসেই পাট কেনা-বেচা করছেন। ব্যবসায়ীরা আরও জানান, এখানে প্রতিমন পাট প্রকার ভেদে ১৬’শ থেকে দুই হাজার টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আলী আকবর মোল্লা জানান, ভৌগলিক অবস্থানগত কারণে প্রায় ৫০ বছরের ঐতিহ্য ধরে রেখেছে সরিকলের ভাসমান পাটের হাট।


আরো সংবাদ

Hacklink

ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme