২৫ এপ্রিল ২০১৯

ভিজিএফ’র চাল আত্মসাত, ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা

ভিজিএফ’র চাল আত্মসাত, ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা - সংগৃহীত

অতিদরিদ্র পরিবারের জন্য ঈদ উপলক্ষে সরকারের বিশেষ বরাদ্দকৃত ভিজিএফের চাল অত্মসাতের অভিযোগে জেলার উজিরপুর উপজেলার জল্লা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও আ’লীগের সভাপতি বিশ্বজিৎ হালদার নান্টুসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সোমবার বরিশাল জেলা ও দায়রা জজ আদালতে ওই ইউনিয়নের বাহেরঘাট গ্রামের মো. এরশাদ হাওলাদার বাদি হয়ে এ মামলা দায়ের করেন। আদালতের বিচারক সৈয়দ এনায়েত হোসেন মামলাটি আমলে নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য দূর্নীতি দমন কমিশনকে (দুদক) নির্দেশ দেন। মঙ্গলবার দুপুরে আদালতের আদেশ প্রাপ্তির কথা স্বীকার করেছেন দুদকের বরিশাল অফিসের দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা।

এদিকে হতদরিদ্রদের ভিজিএফ’র চাল আত্মসাতকারী চেয়ারম্যানের অপসারনসহ তার সহযোগীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মঙ্গলবার বেলা ১১টায় জল্লা ইউনিয়নে পৃথকভাবে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে ইউনিয়নবাসী। ঘন্টাব্যাপী এ বিক্ষোভ কর্মসূচিতে এলাকার জনপ্রতিনিধি, আওয়ামী লীগ ও তার সকল সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী, মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষক, সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ ও ভূক্তভোগীসহ ইউনিয়নের কয়েক হাজার নারী-পুরুষ অংশগ্রহণ করেন।

মামলার বাদি তার আরজিতে উল্লেখ করেন, অভিযুক্তরা দুর্নীতিবাজ ও পরসম্পদ লোভী। তারা পরস্পর যোগসাজশে সরকারীভাবে ঈদ উপলক্ষে বরাদ্দকৃত ইউনিয়নের দরিদ্রদের ভিজিএফ’র প্রাপ্ত চাল না দিয়ে নিজেরা আত্মসাত করেন। ওই চাল বিক্রি করার জন্য পাচারের সময় গত ২৮ আগস্ট স্থানীয়রা অভিযুক্তদের হাতেনাতে আটক করে।

খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ও থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযুক্তদের কবল থেকে ২ হাজার ২৫০ কেজি ভিজিএফ’র চাল জব্দ করে ও ইউনিয়ন পরিষদের গুদাম সিলগালা করেন। তবে রহস্যজনক কারণে এ ঘটনায় উপজেলা প্রশাসন কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি। মামলায় অভিযুক্তরা হচ্ছেন, ইউপি চেয়ারম্যান বিশ্বজিত হালদার নান্টু, ওএমএস ডিলার প্রিতম বিশ্বাস ও তাদের সহযোগী সুশান্ত হালদার, রমেশ বিশ্বাস, দুলাল বিশ্বাস।

অপরদিকে মঙ্গলবার সকাল ১১টা থেকে ১টা পর্যন্ত জল্লা ইউনিয়নবাসির ব্যানারে ধামুরা-কারফা সড়কের কারফা বটতলা এবং সৌদি মার্কেট এলাকায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, মোহাম্মদপুর থানা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মো. শাকিল ইসলাম রাব্বি, জল্লা ইউনিয়ন সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি তাইজুর রহমান পান্না, ছাত্রলীগের সভাপতি মামুন শাহ্, ইউপি সদস্য ডা. আলী হায়দার নান্নু প্রমূখ। এ সময় বক্তারা বলেন, ভিজিএফ’র চাল আত্মসাতকারী চেয়ারম্যান নান্টুসহ তার সহযোগীদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার এবং চেয়ারম্যানের অপসারন না হওয়া পর্যন্ত তারা আন্দোলন কর্মসূচি চালিয়ে যাবেন।

জল্লা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হালদার নান্টু চাল বিক্রির অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আত্মসাতের জন্য নয়, ভিজিএফ এর কার্ডধারীদের মধ্যে বিতরণের জন্য চাল নেওয়া হয়।

 


আরো সংবাদ




iptv al Epoksi boya epoksi zemin kaplama Daftar Situs Agen Judi Bola Net Online Terpercaya Resmi

Hacklink

Bursa evden eve nakliyat
arsa fiyatları tesettür giyim
Canlı Radyo Dinle hd film izle instagram takipçi satın al ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme

instagram takipçi satın al
hd film izle
gebze evden eve nakliyat