১৮ জুলাই ২০১৯

ছাত্রকে পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে দেয়ার অভিযোগ দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে

-

গলাচিপা উপজেলার চর চন্দ্রাইল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. শাহিন গাজী ও শিক্ষক সজল চন্দ্র বিশ্বাসের বিরুদ্ধে নবম শ্রেণির ছাত্র আ. রহিমকে পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার বিদ্যালয়ে চলাকালীন সময়। গুরুত্বর আহত আ.রহিমকে গলাচিপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, গত বৃহস্পতিবার বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেনির দুই ছাত্র তারিকুর রহমান ও শাকিল মোবাইল ফোন ক্লাসে নিয়ে আসে। বিষয়টি শ্রেণি শিক্ষক সজল চন্দ্র বিশ্বাসের কাছে ধরা পড়ে। তিনি ওই ছাত্রদের কাছ থেকে মোবাইল দু’টি নিয়ে যায়। এতে আ.রহিম ক্ষিপ্ত হয়ে শিক্ষক সজল বিশ্বাসকে মোবাইল ফোন ফিরিয়ে দেয়ার হুমকির অভিযোগ রয়েছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শনিবার ছাত্র আ. রহিম সজল বিশ্বাসের কাছে মাফ চাইতে গেলে প্রধান শিক্ষক মো.শাহিন গাজী ছাত্রকে শিক্ষকদের রুমে ডেকে নিয়ে ব্যাপক মারধর করে। এতে রহিমের মাথা ফেটে যায় এবং ঐ ছাত্রকে বই পত্র রেখে বিদ্যালয় থেকে বের করে দেন।

ইউপি চেয়ারম্যান খালিদুল ইসলাম স্বপন ছাত্র আ. রহিম গরীব ও মেধাবী হওয়ায় বিনা খরচে বিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ করে দেয় বলে ছাত্র আ. রহিম জানান। আরও জানা গেছে, প্রায় দেড় মাস আগে আ. রহিমের বাবা মজিদ গাজী মারা যায় এবং মা ছেলেকে মারার ঘটনা শুনে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে।

এদিকে চর চন্দ্রাইল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো.শাহিন গাজী তার বিরুদ্ধে আনীত সব অভিযোগ অস্বীকার করেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার গোলাম মোস্তফা জানান, মোবাইল ক্লাসে নিয়ে আসা অন্যায়। তবে শিক্ষক কর্তৃক ছাত্রকে মারধরের ঘটনা ঘটে থাকলে সেটাও অন্যায়। তদন্ত করে সত্যতা পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
গলাচিপা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জাহিদ হোসেন জানান, বিষয়টি জেনেছি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরো সংবাদ

gebze evden eve nakliyat instagram takipçi hilesi