২৩ মার্চ ২০১৯

বরিশাল সিটিতে প্রতীক পেয়েই প্রচারণার মাঠে প্রার্থীরা

প্রতীক পাওয়ার পর নির্বাচনী প্রচারনায় নামেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট মোঃ মজিবর রহমান সরোয়ার। -

বরিশাল সিটি নির্বাচনের প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থীদের মধ্যে উৎসবমুখর পরিবেশে প্রতীক বরাদ্দ করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে শহরের কাশিপুর এলাকায় আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও সিটি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে এ প্রতীক বরাদ্দের কার্যক্রম শুরু হয়। চলে বিকেল পর্যন্ত। তবে প্রতীক পেয়েই অনেকে প্রচার প্রচারণা শুরু করে দিয়েছেন। বিশেষ করে কোন কোন প্রার্থী রিকশা বা অটোরিকশাযোগে মাইকিংও শুরু করেছেন।
বরিশাল সিটি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. মুজিবুর রহমান জানিয়েছে, বেলা ১২টা থেকে মেয়র প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়। এর আগে সকাল থেকে নির্ধারিত সময়ে বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলরদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছিল।

খোঁজখবর নিয়ে জানা গেছে, ৬ জন মেয়র প্রার্থীর মধ্যে দলীয় নৌকা প্রতীক বরাদ্দ পেয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ, ধানের শীষ প্রতীক বরাদ্দ পেয়েছেন বিএনপি প্রার্থী অ্যাডভোকেট মোঃ মজিবর রহমান সরোয়ার, লাঙল প্রতীক বরাদ্দ পেয়েছেন জাতীয় পার্টির ইকবাল হোসেন তাপস, ইসলামী আন্দোলনের হাতপাখা প্রতীক বরাদ্দ পেয়েছেন তাদের সমর্থিত মেয়র প্রার্থী ওবাইদুর রহমান মাহবুব, মই প্রতীক পেয়েছেন বাসদের মেয়র প্রার্থী মনীষা চক্রবর্তী এবং কাস্তে প্রতীক পেয়েছেন সিপিবির প্রার্থী একে আজাদ।
বরিশাল জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সিটি নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা হেলাল উদ্দিন খান বলেন, প্রতীক পাওয়ার পর প্রার্থীরা এখন নির্বাচনী বিধি-নিষেধ মেনে প্রচার-প্রচারণা চালাতে পারবেন।

বেলা ২টার পর থেকে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারনা ও মাইকিংয়ের শব্দে মুখর হয়ে উঠেছে বরিশাল নগরীর নির্বাচনী পরিবেশ। ছাপাখানা গুলোতে চলছে লিফলেট ও পোস্টার ছাপনোর হিড়িক। রাত দিন ব্যস্ত সময় পার করছেন ছাপাখানার কর্মিরা। বরিশাল নগরীর গ্রাফিক্স প্রিন্টার্সের সত্বাধিকারী অম্লান রায় বলেন, সিটি নির্বাচনের পোস্টার ও লিফলেট ছাপানো কেন্দ্রিক আমাদের ব্যস্ততা বেড়েছে, বৃষ্টির মৌসুম হওয়ায় অনেক প্রার্থীই লেমিনেশন করা পোস্টার ছাপাচ্ছেন। যাতে বৃষ্টিতে তাদের পোস্টার নষ্ট না হয়।

এদিকে প্রতীক বরাদ্দ পেয়ে বিএনপির প্রার্থী অ্যাডভোকেট মোঃ মজিবর রহমান সরোয়ার, জাতীয় পার্টির প্রার্থী ইকবাল হোসেন তাপস ও ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী ওবায়দুর রহমান মাহবুব নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হওয়া নিয়ে শঙ্কার কথা জানিয়েছেন। পাশাপাশি তারা সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবি জানিয়েছেন সরকারের প্রতি।
আগামী ৩০ জুলাই নির্বাচনে ৩০টি ওয়ার্ডের ১২৩ কেন্দ্রে ২ লাখ ৪২ হাজার ১৬৬ জন ভোটার বেছে নেবেন তাদের প্রার্থীদের।


আরো সংবাদ

iptv al Epoksi boya epoksi zemin kaplama Daftar Situs Agen Judi Bola Net Online Terpercaya Resmi

Hacklink

instagram takipçi satın al ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme

instagram takipçi satın al