২৬ আগস্ট ২০১৯

১৯ বছরেও এমপিওভুক্ত হয়নি ফেনীর মধুপুর নিম্নমাধ্যমিক বিদ্যালয়

-

প্রয়োজনীয় ভবন রয়েছে। আছে পর্যাপ্ত জায়গা। শিক্ষার্থীরা জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করছে। এরকম সব ধরনের শর্ত পূরণ করা সত্ত্বেও এমপিওভুক্ত হয়নি ফেনী পৌরসভাধীন মধুপুর আদর্শ নি¤œমাধ্যমিক বিদ্যালয়। প্রতিষ্ঠার ১৯ বছরেও এমপিওভুক্ত না হওয়ায় বিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মচারীরা মানবেতর জীবনযাপন করছেন। প্রতিষ্ঠার প্রায় দুই যুগ পার করলেও ফেনী পৌরসভার মধ্যে একমাত্র এ স্কুলটি ননএমপিও হিসেবে পড়ে আছে। জনপ্রতিনিধিরা বারবার প্রতিশ্রুতি দিলেও আলোর মুখ দেখেনি এ প্রতিষ্ঠানটি।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, শহর থেকে প্রায় দুই কিলোমিটার দক্ষিণে পৌরসভার ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে অবস্থিত মধুপুর আদর্শ নি¤œমাধ্যমিক বিদ্যালয়। ২০০০ সালে প্রতিষ্ঠানটি প্রতিষ্ঠা করেন স্থানীয় সমাজসেবক আবদুল ওহাব মিয়া। ২০০২ সালে অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত পাঠদান এবং ২০১৩ সালে নবম শ্রেণী পর্যন্ত পাঠদানের অনুমতি লাভ করে। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটিতে ৩০০ শিক্ষার্থী অধ্যয়নরত। এখানে ব্যবসায় শিক্ষা ও মানবিক শাখা চালু রয়েছে। প্রতি বছর শিক্ষার্থীরা ভালো ফলাফল করেছে। এখানে রয়েছে ১৩ জন শিক্ষক-শিক্ষিকা ও দু’জন কর্মচারী। কোলাহলমুক্ত পরিবেশে ৭০ শতাংশ জমির ওপর প্রতিষ্ঠিত বিদ্যালয়ের অবকাঠামো যথেষ্ট ভালো। আছে শিক্ষার্থীদের জন্য খেলার মাঠ। কিন্তু প্রতিষ্ঠানটি এমপিওভুক্ত না হওয়ায় শিক্ষক-কর্মচারীরা সব ধরনের সরকারি সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্ছিত হচ্ছে। বলা যায় তারা মানবেতর জীবনযাপন করছে।
জানা গেছে, ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী পৌরসভার মেয়র থাকাকালীন বিদ্যালয়ে ৪ কক্ষবিশিষ্ট একটি ভবন নির্মাণ করিয়ে দেন।
বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা আবদুল ওহাব মিয়া জানান, এলাকার দরিদ্র মানুষকে শিক্ষার আলোয় আলোকিত করার লক্ষ্যে ২০০০ সালে এলাকাবাসীকে সাথে নিয়ে স্কুলটি প্রতিষ্ঠা করেন। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই স্কুলটি শিক্ষার্থীদের পাঠদানসহ শিক্ষার গুণগত মান বজায় রেখেছে। শিক্ষার্থীরাও পাবলিক পরীক্ষায় ভালো ফল করছে। কিন্তু এমপিওভুক্ত না হওয়ায় এর শিক্ষক-কর্মচারীরা আর্থিক-সঙ্কটে দিন কাটাচ্ছেন। তিনি প্রতিষ্ঠানটি এমপিওভুক্ত করার জন্য এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে সরকারের কাছে জোর দাবি জানান।
প্রধান শিক্ষক বিজন কান্তি মজুমদার জানান, চলতি বছরের ৩০ এপ্রিল ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী বিদ্যালয়টি এমপিওভুক্তির জন্য শিক্ষামন্ত্রী বরাবর ডিওলেটার পাঠিয়েছেন। ডিওলেটারে উল্লেখ করা হয়, ২০০৩ সালে বিদ্যালয়টি জুনিয়র স্কুল হিসেবে অনুমোদন এবং ২০১৪ সালে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড কুমিল্লা থেকে মাধ্যমিক স্কুল হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করে। অনুলিপিটি মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক বরাবর পাঠানো হয়েছে।
জানতে চাইলে জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কাজী মোহাম্মদ সলিম উল্যাহ বিদ্যালয়টি পরিদর্শন করে শিক্ষার মান ও পরিবেশ দেখে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন।


আরো সংবাদ

জিয়া নিজেও বিশ্বাসঘাতকতার শিকার হয়েছেন : কাদের সাবেক মার্কিন রাষ্ট্রদূত বার্নিকাটের গাড়িতে হামলায় জড়িতরা শনাক্ত এবার ভুটানের সাথে বিদ্যুৎ উৎপাদনে সমঝোতায় যাচ্ছে বাংলাদেশ প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়েই সৌদি আরবের ভুয়া ভিসাসহ আটক ২ মাউশিতে টেন্ডার নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ কাশ্মির সঙ্কট নিয়ে লেবার পার্টির গোলটেবিল বৈঠক আজ আরবান কো-অপারেটিভ ব্যাংক চেয়ারম্যানসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা আপন জুয়েলার্সের মালিকের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবেদন পুত্রবধূর নারাজি আবেদন সংবাদপত্র কর্মচারী ফেডারেশন : সভাপতি মতিউর মহাসচিব খায়রুল শুল্কমুক্ত সুবিধা না নিয়ে নৈতিকতার দৃষ্টান্ত স্থাপনের আহ্বান টিআইবির খিলগাঁওয়ে অস্ত্রসহ ৪ ছিনতাইকারী গ্রেফতার

সকল

জামালপুরের ডিসির নারী কেলেঙ্কারির ভিডিও ভাইরাল, ডিসির অস্বীকার (২৮৪৮১)কাশ্মিরে ব্যাপক বিক্ষোভ, সংঘর্ষ (১৫২৬৫)কিশোরীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন নোবেল (১৪৮৭৭)কাশ্মির প্রশ্নে ট্রাম্পের অবস্থান নিয়ে ধাঁধায় ভারত! (১৪৩৫০)৭০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে খারাপ ভারতের অর্থনীতি (১২৩৭৩)নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৮ : দুঘর্টনার নেপথ্যে মোটর সাইকেল! (১১৪৭৩)নিজের দেশেই বিদেশী ঘোষিত হলেন বিএসএফ অফিসার মিজান (১১০৪৫)সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪ বাংলাদেশী নিহত (১০৫১৬)কাশ্মির সীমান্তে পাক বাহিনীর গুলিতে ভারতীয় সেনা নিহত (৯৫০৯)চুয়াডাঙ্গায় মধ্যরাতে কিশোরীকে অপহরণচেষ্টা, মামাকে হত্যা, গণপিটুনিতে ঘাতক নিহত (৯৩৯৫)



mp3 indir bedava internet