১৬ জুন ২০১৯

রোহিঙ্গা হত্যার সাজা শেষের আগেই মুক্ত সেই সেনা সদস্যরা

মিয়ানমারে ১০ জন রোহিঙ্গাকে হত্যার দায়ে সাজাপ্রাপ্ত ৭ সেনাসদস্য সাজার মেয়াদ শেষের আগেই মুক্তি পেয়েছেন। ১০ বছরের কারাদণ্ড হলেও এক বছরেরও কম সময় কারাগারে থাকতে হয়েছে তাদের।

দু'জন কারাকর্মকর্তা, দুই কারাবন্দী ও এক সেনাসদস্যের বরাত দিয়ে সোমবার এ তথ্য জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। তারা মুক্তি পেয়েছেন গত নভেম্বরে।

২০১৭ সালে ইন দিন গ্রামে ১০ জন রোহিঙ্গাকে হত্যার দায়ে তাদের কারাদণ্ড হয়েছিল। ওই ঘটনার অনুসন্ধান চালিয়ে সংবাদ প্রকাশের কারণে সাজা হয়েছিল রয়টার্সের দুই সাংবাদিকের। ওই দুই সাংবাদিক ১৬ মাস সাজা খাটলেও হত্যার দায়ে সাজাপ্রাপ্তদের এক বছরও জেলে থাকতে হয়নি।

রাখাইনের সিতে কারাগারারে চিফ ওয়ার্ডেন উইন নাইং ও কেন্দ্রীয় একজন কারা-কর্মকর্তা রয়টার্সকে নিশ্চিত করেছেন যে, ওই সেনা সদস্যরা এখন আর কারাগারে নেই। তবে সেনা সদস্যদের মুক্তির সুনির্দিষ্ট তারিখ জানাননি এই কর্মকর্তারা।

‘‘সামরিক বাহিনী দ্বারা তাদের সাজা কমানো হয়েছিল,'' রয়টার্সকে বলেছেন এক কেন্দ্রীয় কারা-কর্মকর্তা।

২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে ১০ মুসলিম রোহিঙ্গা পুরুষ ও ছেলেকে হত্যা করা হয়। হত্যা নিয়ে প্রতিবেদনের জন্য তথ্য সংগ্রহ করতে গিয়ে আটক হয়েছিলেন ওয়া লন ও কিয় সোয়ে।

৫১১ দিন বন্দি থাকার পর প্রেসিডেন্টের ক্ষমায় গত ৭ মে তারা ছাড়া পেয়েছেন। কিন্তু তার আগেই মুক্তি পেয়ে গেছেন সেনা সদস্যরা। ডয়েচে ভেলে।


আরো সংবাদ