২০ মে ২০১৯

মালয়েশিয়ায় বাস খাদে পড়ে ৫ বাংলাদেশীসহ নিহত ১১

মালয়েশিয়া
মালয়েশিয়ায় বাস খাদে পড়ে ৫ বাংলাদেশীসহ নিহত ১১ - ছবি : দ্য স্টার মালয়েশিয়া

মালয়েশিয়ায় একটি যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে পাঁচ বাংলাদেশীসহ ১১ জন নিহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে বাসটির ড্রাইভারও রয়েছে। আহতদের মধ্যে পাঁচজনের অবস্থা গুরুতর।

গতকাল রোববার রাত ১১টা ১০ মিনিটে কুয়ালালামপুরের কে এল ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টের এমএএস কার্গো, জালান এস-৮ পেকেলিলিংয়ের পাশে এই দুর্ঘটনা ঘটে। খবর দ্য স্টার মালয়েশিয়ার।

খবরে প্রকাশ, নিহতদের মধ্যে পাঁচজন বাংলাদেশী পুরুষ, দুইজন নেপালী পুরুষ ও তিনজন ইন্দোনেশীয় নারী। বাসটির ড্রাইভার মালয়েশিয়ার নাগরিক। 

কে এল আই এয়ারপোর্টের ওসিপিডির সহকারী কমিশনার জুলকিফলি আদম শাহ সোমবার গণমাধ্যমকে বলেন, দুর্ঘটনার সময় বাসটি ৪৩ জন শ্রমিক বহন করছিল। তারা এমএএস কার্গোতে চুক্তিভিত্তিক কাজ করতেন। এ ঘটনায় আহত ৩৪ জনকে চিকিৎসার জন্য কাজাং, সার্ডাং, পুত্রাজায়াসহ বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আরো পড়ুন :
মালয়েশিয়ায় পাহাড়ধসে বাংলাদেশী নিহত
নয়া দিগন্ত ডেস্ক, ২৬ আগস্ট ২০১৮
মালয়েশিয়ায় পাহাড়ধসে রুহুল আমিন ওরফে ইরফান (৩২) নামে এক বাংলাদেশী শ্রমিক নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন দিন ইসলাম ওরফে দিলু মিয়া (৪৭) নামে অন্য এক বাংলাদেশী। বাংলাদেশ সময় শুক্রবার বিকেল ৪টায় মালয়েশিয়ার পেনাং শহরে এ দুর্ঘটনা ঘটে। বাংলা ট্রিবিউন।

নিহত ইরফান যশোরের মণিরামপুরের কাশিমপুর ইউনিয়নের ইত্যা গ্রামের ছায়েদ আলীর ছেলে। তিনি দুই সন্তানের জনক। ৯ বছর আগে তিনি মালয়েশিয়ায় যান। আহত দিলু মিয়া ইরফানের বোন-জামাই।

ইরফানের খালাতো ভাই মইন হোসেন জানান, রাস্তা তৈরির জন্য পাহাড় কাটার কাজ করছিলেন ইরফান ও দিলু। এ সময় পাহাড়ধসে পড়লে তারা মাটিচাপা পড়েন। এতে ঘটনাস্থলে ইরফানের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় দিলু মিয়া গুরুতর আহত হন।

তিনি আরো বলেন, ‘পেনাং শহরে আমাদের বেশ কয়েকজন পাড়া-প্রতিবেশী রয়েছেন। তাদের মাধ্যমে আমরা এ দুর্ঘটনার খবর পেয়েছি। তারা জানান, দিলু মিয়াকে মালয়েশিয়ায় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।’ আগামী বুধবার ইরফানের লাশ ইত্যায় নিজ বাড়িতে পৌঁছতে পারে বলেও জানান মইন। কাশিমপুর ইউপির ১নং ওয়ার্ডের সদস্য শহিদুল ইসলাম বলেন, ‘মালয়েশিয়া প্রবাসী ইত্যা গ্রামের বেশ কয়েকজনের সাথে ফোনে কথা বলে ইরফানের মৃত্যু ও দিলু মিয়ার আহত হওয়ার ব্যাপারে নিশ্চিত হয়েছি। তারা সেখানে এক চীনা মালিকের অধীনে কাজ করতেন। ইরফানের লাশ কবে দেশে আসবে- এ ব্যাপারে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।’

বাহরাইনে ৪ বাংলাদেশী নিহত
নয়া দিগন্ত ডেস্ক, ১১ অক্টোবর ২০১৮
গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ফলে ভবন ধসে বাহরাইনের রাজধানী মানামায় চার বাংলাদেশী নিহত ও আরো ৩০ জন আহত হয়েছেন। এপি, সিনহুয়া।

বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্র জানায়, নিহতরা হলেন- চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার ফজলুল হকের ছেলে আবদুল হান্নান, হাজীগঞ্জ উপজেলার আবদুর রশিদের ছেলে জাকির, কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার ইসমাইলের ছেলে জয়নাল। নিহত অন্যজনের নাম আলো মিয়া। তার ঠিকানা জানা যায়নি। গত গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ফলে মানামার সালমানিয়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ সময় পুরনো তিনতলা ভবনটির একটি অংশ ধসে পড়ে। মঙ্গলবার ঘটনাস্থলে তিনজন মারা যান। গতকাল হাসপাতালে আরেকজনের মৃত্যু হয়।

বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্র আরো জানায়, আহতদের মধ্যে দু’জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

বাহরাইনের প্রধানমন্ত্রী খলিফা বিন সালমান আল খলিফা এ ঘটনায় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।


আরো সংবাদ




agario agario - agario