ক্রীড়া দিগন্ত

ত্রিদেশীয় বধির ক্রিকেট বাংলাদেশ-ভারত-পাকিস্তান

সুস্থ মানুষের মতোই তাদের চালচলন। তবে কথা বলতে না পারাটাই তাদের মনের কষ্ট। হাত বা চোখের ইশারাতেই নিজেদের অভিব্যক্তি প্রকাশ করে থাকেন। খেলার মাঠেও মুখের চেয়ে ইশারাতেই কথা বেশি হয় বধিরদের। এমন সব বধিরকে নিয়ে বাংলাদেশের মাটিতে গড়াচ্ছে ত্রিদেশীয় বধির ক্রিকেট। স্বাগতিক বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও ভারতকে নিয়ে আগামীকাল থেকে শুরু হচ্ছে ত্রিদেশীয় বধির ক্রিকেট সিরিজের লড়াই।
ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে আট দিনব্যাপী এই প্রতিযোগিতা। প্রতিটি দল দ্বৈত লিগ পদ্ধতিতে দু’বার করে একে অপরের মুখোমুখি হবে। টুর্নামেন্টে প্রতিটি ম্যাচে সেরার পুরস্কার থাকছে। এ ছাড়া টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন দল ট্রফিসহ ৫০ হাজার এবং রানার্সআপ দল ট্রফিসহ ২৫ হাজার টাকা প্রাইজমানি পাবে।
বাংলাদেশ বধির স্পোর্টস ফেডারেশনের সহসভাপতি জাকির হোসেন খান বলেন, ‘আমরা দীর্ঘ দিন ধরে ক্রিকেট খেলে আসছি। ২০০৫ সালে যাত্রা শুরু করে দেশে ও দেশের বাইরে একাধিক টুর্নামেন্টে অংশ নিই। এশিয়া কাপ টুর্নামেন্টে আমরা রানার্সআপ হয়েছি। প্রথমবারের মতো বধির ক্রিকেট দলের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে ওয়ালটন। আশা করি এবারে নিজেদের মাটিতে আমরা ত্রিদেশীয় সিরিজে চ্যাম্পিয়ন হতে পারব।’
ওয়ালটনের ডেপুটি এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর উদয় হাকিম বলেন, ‘বধির হওয়া সত্ত্বেও তারা ক্রিকেট খেলছে, বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করছে। ভারত, পাকিস্তান ও বাংলাদেশকে নিয়ে এ টুর্নামেন্ট আয়োজন হচ্ছে জেনে আমরা খুশি। বাংলাদেশ অবশ্যই চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য লড়াই করবে। বধিররা সমাজে পিছিয়ে পড়া শ্রেণী। তাদের পাশে দাঁড়ানো আমাদের সামাজিক দায়িত্ব।’

 

আরো সংবাদ