রাজশাহী

বগুড়ায় পা কাটা শাকিল খুন

বগুড়ায় জন্ম দিনেই খুন হয়েছে পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী শাকিল ওরফে পা কাটা শাকিল ওরফে বি ক্লাস শাকিল (২৫)। এসময় সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত হয়েছে শাকিলের সহযোগি স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা বিশাল (২৫)। শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে শহরের চকসুত্রাপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত শাকিল শহরের লতিফপুর কলোনীর মৃত শাহজালালের ছেলে। সে বগুড়া শহর ছাত্রদলের সভাপতি সৌরভের ছোটভাই ও পৌর আওয়ামীলীগ নেত্রী আলেয়ার ভাতিজা।
জানা গেছে, শুক্রবার ছিল শাকিলের জন্মদিন। এদিন সন্ধ্যায় সে নিজ বাস ভবনে পরিবারের সদস্য ও বন্ধুদের নিয়ে কেক কাটে। এরপর শাকিল, বিশাল ও মিশু নামের তিন বন্ধু মোটরসাইকেল যোগে শহরের চকসুত্রাপুর সুইপার পট্টিতে যায়। সেখানে পুর্ব বিরোধের জের ধরে সন্ত্রাসীরা শাকিলকে রাম দা দিয়ে কোপায়। শাকিলকে উদ্ধার করতে গেলে বিশালকেও ছুরিকাঘাত করে সন্ত্রাসীরা। পরে মিশু দুজনকে উদ্ধার করে মোটরসাইকেল যোগে হাসপাতাল নিয়ে যাওয়ার সময় সদর থানার সামনে শাকিল মোটরসাইকেল থেকে পড়ে যায়। এসময় পুলিশ মোটরসাইকেলসহ মিশুকে আটক করে। গুরুতর আহত দুইজনকে শহিদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক শাকিলকে মৃত ঘোষণা করে। তার অপর সহযোগি শহরের ১০নং ওর্য়াড স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক বিশাল শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। শাকিলের নামে থানায় ৫ টি মামলা রয়েছে। পুলিশ বলেছে, তার নামে হত্যা, ছিনতাই, চাঁদাবাজীর অসংখ্য অভিযোগ আছে। তবে সেকোন দলের সক্রিয় কমর্ িনয়।
পুলিশ জানায়, ২০১৬ সালে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। ওই সময় পালাতে গিয়ে পুলিশের গুলিতে আহত হয়। পরে তার ডান পা কেটে ফেলা হয়। গত এক মাস আগে শাকিল জামিনে মুক্তি পায়। শাকিলের অপর সহযোগি বিশাল এবং মিশু স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা কর্মী। এরা দুই জনই কিছুদিন আগে জামিনে মুক্তি পেয়েছে।
বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) সনাতন চক্রবর্তী জানান, শাকিল, বিশাল ও মিশু তিনজনই সন্ত্রাসী।

আরো সংবাদ