বিবিধ

ট্রাম্প ও কিমকে যে আহ্বান জানালেন মুন

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইন মঙ্গলবার উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক অস্ত্র নিরস্ত্রীকরণের ব্যাপারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও পিয়ংইয়ংয়ের নেতা কিম জং উনকে ‘বলিষ্ঠ সিদ্ধান্ত’ নেয়ার আহবান জানিয়েছেন। এদিকে হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, তারা উত্তর কোরিয়ার সাথে আরেকবার আলোচনায় বসার পরিকল্পনা করছে। 

মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকে মুন বলেন, ‘উত্তর কোরিয়ার সম্পূর্ণ নিরস্ত্রীকরণ এমন একটি ইস্যু যা আলোচনার মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার মধ্যে মৌলিকভাবে সমাধান করতে হবে।’

তিনি বলেন,‘তবে যতক্ষণ পর্যন্ত উত্তর কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে আরো সক্রিয় আলোচনা ও যোগাযোগ না হবে ততক্ষণ পর্যন্ত আমরা তাদের মধ্যে মধ্যস্থতা করতে না পারলেও কাজ করতে পারি।’

তিনি আরো বলেন, ‘এ ব্যাপারে আমাকে ভূমিকা রাখতে অনুরোধ জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ও চেয়ারম্যান কিম।’
ট্রাম্পকে দেয়া এক চিঠিতে পিয়ংইয়ংয়ের দ্বিতীয় দফা আলোচনা প্রস্তাবের পর ট্রাম্প ও কিমের মধ্যে আরেক দফা ‘আলোচনার প্রক্রিয়া’ চলছে হোয়াইট হাউস এমন কথা জানানোর পর দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট একথা বলেন।

ট্রাম্প ও কিমের মধ্যে সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত ঐতিহাসিক আলোচনার মধ্যস্থতার দায়িত্ব পালন করা মুন উত্তর কোরিয়ার নেতার সাথে তার এ বছরের তৃতীয় বৈঠকের জন্য আগামী সপ্তাহে পিয়ংইয়ং সফরে যাচ্ছেন। গত জুনে তাদের মধ্যে এ ঐতিহাসিক বৈঠক হয়।

মুন বলেন, ‘উত্তর কোরিয়ার হাতে থাকা পারমাণবিক অস্ত্র ধ্বংসে উচ্চ পর্যায়ের আলোচনা এগিয়ে নিতে পিয়ংইয়ং ও মার্কিন নেতার বড় ধরনের দূরদর্শিতা ও বলিষ্ঠ সিদ্ধান্ত প্রয়োজন।’ সিঙ্গাপুরে ট্রাম্প ও কিম নিরস্ত্রীকরণ বিষয়ে একটি অস্পষ্ট চুক্তি স্বাক্ষর করেন।

এ চুক্তি স্বাক্ষরের পর থেকে এক্ষেত্রে তেমন কোনো অগ্রগতি না হওয়ায় ট্রাম্প গত মাসের শেষের দিকে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও’র পিয়ংইয়ং সফরের পরিকল্পনা হঠাৎ বাতিল করেন।

কয়েক সপ্তাহের অচলাবস্থা সত্ত্বেও বর্তমানে এটা নিয়ে আলোচনা চলছে নতুন এ চিঠি থেকে এমন ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, রোববার উত্তর কোরিয়ার ৭০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী জাঁকজমকভাবে পালনকালে আন্ত:মহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র প্রদর্শন করা থেকে পিয়ংইয়ং বিরত থাকে। ট্রাম্প এটিকে একটি ইতিবাচক পদক্ষেপ হিসেবে অভিহিত করেন।

আরো সংবাদ