বিশ্বকাপ ২০১৮

পরাজয়ের কারণ যা বললেন ক্রোয়েশিয়ার কোচ

ফুটবল

এবারের বিশ্বকাপে টানা তিন ম্যাচ প্রথমে পিছিযে থেকেও পরে সমতা এনে পরে জিতেছিল ক্রোয়েশিয়া। ফাইনালেও তাদের বিপক্ষে লিড ফ্রান্সের । কিন্তু সেমিফাইনালে ম্যাচ সেরা পেরিসিচ ঠিকই সমতা আনেন। কিন্তু ফরাসী বিপ্লবের কাছে এবার আর পেরে উঠেনি বলকান অঞ্চলের দেশটি। পরবর্তীতে আরো তিন গোল আদায় গ্রিজম্যান, পগবা, এমবাপেদের। এতেই মস্কোর লুজনিকি স্টেডিয়ামের ফাইনাল থেকে ছিটকে যায় ক্রোয়েটরা। ৪-২ এ ম্যাচ জিতে দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বসেরা দেশ্যম বাহিনী। তবে শিরোপার এতো কাছে এসেও তাতে হাত না ছোঁয়াতে না পারার জন্য পেনাল্টিকেই দায়ী করলেন ক্রোয়েশিয়ান কোচ জ্লাটকো ডেলিচ। তার মতে, পেনাল্টিই তাদের শেষ করে দিয়েছে।

ম্যাচ শেষে মিক্সড জোনে এলেন ডেলিচ। ভেতরে কষ্ট থাকলেও তা লুকালেন মুখের হাসি দিয়ে। উল্লেখ করলেন, আমি গর্বিত এই দল নিয়ে। আমরা বিশ্বকাপ জিততে না পারলেও এখন বিশ্বের দ্বিতীয় সেরা দল। আমার চেষ্টা করেও ফ্রান্সের ট্রফি জয় ঠেকাতে পারিনি। এর পরেই বললেন, আমাদের জালে যাওয়া চার গোলের দুটিই সেট পিস থেকে। তবে বিশেষ করে পেনাল্টি থেকে দ্বিতীয় গোল হজমই আমাদের ম্যাচ থেকে ছিটকে ফেলেছে। ওটা পেনাল্টি ছিল না।

নিজ দল সম্পর্কে আরো জানান, আমরা স্টেপ বাই স্টেপ এগিয়েছি । তবে ভাবেতে পারিনি এভাবে হারতে হবে ফাইনলে। এরপর পুনরায় ফিরে এলেন পেনাল্টি প্রসঙ্গে। ওই পেনাল্টিই সর্বনাশ করেছে। তা না হগলে ম্যাচ তো সমান সমানই ছিল।

বিশ্বকাপের আগ পর্যন্ত ডেলিচ ছিলেন অখ্যাত কোচ। আর এখন বিশ্বের দ্বিতীয় সেরা। এই পর্যন্ত আসার পেছনে তিনি এশিয়ায় ৭ বছর কাজের অভিজ্ঞতার কখা উল্লেখ করলেন। বলেন, ‘এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন্স লিগে আমার দল ৪৫টি ম্যাচ খেলেছে। ইউরোপের মতো উন্নত নয়। তবে আমার বেশ উপকার হয়েছে তা থেকে।’

ক্রোয়েশিয়াকে বিশ্বকাপ রানার্সআপ করেছেন। সুতরাং এখন ডেলিচের ভালো প্রস্তাব আসবে অন্য কোনো দেশ বা বড় কোনো ক্লাব থেকে। এ প্রসঙ্গে বলেন, বিশ্বকাপ শেষ। এখন আমি বিশ্রাম নেবো। এরপর এই নিয়ে চিন্তা।

এদিকে ক্রোয়েশিয়ার তারকা ফুটবলার ইভান রাকিটিচ এবং অধিনায়ক লুকা মডরিচের মুখেও পেনাল্টির সমালোচনা। রাকিটিসের মতে, ‘আমি রেফারির সমালেচনা করবো না। তবে পেনাল্টিটা সন্দেহজনক। এটা পেনাল্টি হতে পারে না।’ এরপর জানান, ‘আমি গর্বিত দল নিযে। তবে কষ্ট হচ্ছে বিশ্বকাপ জিততে না পারায়।’

অধিনায়ক মডরিচের বক্তব্য, এমন ম্যাচে রেফারি এই পেনাল্টি দিতে পারে না।ওটা পেনাল্টি ছিল না। ফরাসীরাও আমাকে বলেছে তা পেনাল্টি ছিল না। অমারা প্রথম গোল খেলাম ফ্রি-কিক থেকে। এরপর দ্বিতীয় গোল পেনাল্টিতে। তার মতে, যে ফ্রি-কিক থেকে গোল খেয়েছি সেটাও ফাউল হয়নি। অবশ্য আমি সমালোচনা করছি না রেফারির। তিনি তার কাজ করেছেন। ম্যাচটা সমান সমানই ছিল।

বিশ্বকাপ জিতলে ভালো লাগতো : মডরিচ
সেরা ফুটবলারের পুরস্কার গোল্ডন বল জিতেছেন ক্রোয়েশিয়ার অধিনায়ক লুকা মডরিচ। কিন্তু তার মধ্যে ম্যাচ শেষে সেই উচ্ছ্বাস দেখা গেল না। বরং শিরোপা জিততে না পারার কষ্টই বেশি পাচ্ছিলেন। তা তিনি উল্লেখও করলেন। জানান, আমি এই হারের জন্য প্রস্তুত ছিলাম না। এসেছিলাম তো চ্যাম্পিয়ন হতে। ট্রফি জিততে পারলেই ভালো লাগতো। গোল্ডন বল জয়ের চেয়ে চ্যাম্পিয়ন হতে না পারার কষ্টই বেশি পীড়া দিচ্ছে আমাকে।

আরো বলেন, গোল্ডন বলের চেয়ে বিশ্বকাপই বেশি গুরুত্বপূর্ণ। যখন আমার হাতে আসর সেরার পুরস্কার তুলে দেয়া হয় তখন মনে হচ্ছিল এটা বিশ্বকাপের কাছে কিছুই নয়। তার মতে, ফ্রান্স আমাদের চেয়ে বেটার ছিল না। সমান ম্যাচই হয়েছে। তারা গোল দিয়েই আজ চ্যাম্পিয়ন।

আরো সংবাদ