২৪ আগস্ট ২০১৯

বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে বিধ্বস্ত বিমান, নিহত ৬

বিমানটি একটি বাড়ির ওপর আছড়ে পড়লে আগুন ধরে যায় - ছবি : সংগৃহীত

চিলির দক্ষিণাঞ্চলে গতকাল মঙ্গলবার বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে। এ দুর্ঘটনায় ৬ জনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে চিলির সিভিল অ্যাভিয়েশন।

জানা গেছে, মঙ্গলবার সকাল ১১টায় লা পালোমা বিমানবন্দর থেকে ওড়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই বিদ্যুতের তারের সাথে জড়িয়ে গেলে বিমানটি একটি বাড়ির ওপর আছড়ে পড়ে। পরে সেখানে আগুন লেগে যায়। মূলত বিমানটির ট্যাংক পুরোপুরি ভর্তি থাকায় এ অগ্নিকা-ের সূত্রপাত ঘটে। পরে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা এসে অনেকক্ষণ চেষ্টা করে আগুন নেভায়। স্থানটি সান্টিয়াগো থেকে ৬০০ মাইল দক্ষিণে অবস্থিত।

পুয়ের্তো মন্টের মেয়র হ্যারি জারগেনসেন জানান, বিমানটি ওড়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই এ দুর্ঘটনা ঘটে৷ পাইলট ছাড়াও পাঁচ যাত্রী ছিলেন ওই বিমানে৷ তারা সকলেই প্রাণ হারিয়েছেন। নিহতদের দুইজন নারী এবং চারজন পুরুষ। অন্যদিকে এ বিমানের ভাঙা অংশের ধাক্কায় এক নারীর পা ভেঙে গেছে। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তবে ঠিক কী কারণে ওই বিমানটি ভেঙে পড়েছে তা এখনো জানা যায়নি। আর যে বাড়ির ওপর বিমানটি ভেঙে পড়েছিল সেই বাড়িতে ওই সময় কেউ ছিলেন কি না, তাও জানা যায়নি।

চিলির সিভিল অ্যাভিয়েশন এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, দুর্ঘটনায় পড়া বিমানটি ছিল আইসল্যান্ডার বিএন-২বি-২৭। এটি আর্চিপিয়েলেগো কোম্পানি পরিচালনা করে। তারা দেশের বিভিন্ন স্থানে বাণিজ্যিক ফ্লাইট পরিচালনা করে থাকে।

আরো পড়ুন : নেপালের বিমানবন্দরে আবার ভেঙে পড়ল বিমান : এক পাইলট ও দুই পুলিশ নিহত
নয়া দিগন্ত অনলাইন, ১৪ এপ্রিল ২০১৯, ১৬:১৮

নেপালের বিমানবন্দরে আবারো বিমান দুর্ঘটনার ঘটনা ঘটেছে। এতে ইতোমধ্যে একজন পাইলট ও দুইজন পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো চারজন।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, নেপালের লুকলা এলাকায় অবস্থিত তেনজিং-হিলারি বিমানবন্দরে রোববার সকালে এ দুর্ঘটনা ঘটে। বিমানটি রানওয়েতে দাঁড়িয়ে থাকা একটি হেলিকপ্টারের সাথে সজোরে ধাক্কা খেলে হতাহতের এ ঘটনা ঘটে।

বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের রাজ কুমার ছেত্রি জানান, রোববার সকালে সামিট এয়ারের বিমানটি লুকাকা থেকে কাঠমান্ডু যাওয়ার জন্য উড্ডয়নের চেষ্টা করছিল। এমন সময় বিমানটি হঠাৎ করে হড়কে গেলে পাশে থাকা মানাং এয়ারের একটি হেলিকপ্টারে আঘাত করলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ওই ঘটনায় বিমানটির চালক ঘটনাস্থলেই মারা যান। এছাড়া পাশে দাঁড়িয়ে থাকা আরো দুই পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হন। তবে প্লেনের চার যাত্রী ও একজন ক্রু অক্ষত আছেন। প্লেনটি ছোট হওয়ায় বড় ধরনের প্রাণহানির ঘটনা থেকে রক্ষা পাওয়া গেছে।

সংবাদমাধ্যম দ্য হিন্দু জানায়, এভারেস্ট অঞ্চল থেকে বের হওয়ার পথে অবস্থিত এ বিমানবন্দরটি বিশ্বের বিপজ্জনক বিমানবন্দরগুলোর অন্যতম। কারণ এর রানওয়ে খুবই ছোট। ফলে এতে উড্ডয়ন ও অবতরণ করা খুবই কঠিন হয়ে দাঁড়ায় পাইলটদের জন্য। এ বিমানবন্দরে কেবল হেলিকপ্টার ও ছোট বিমান আসা যাওয়ার অনুমতি দেয়া হয়ে থাকে। বিমানবন্দরটি সাধারণ ভূমি সমতল থেকে নয় হাজার ৩৩৪ ফুট বা দুই হাজার ৮৪৫ মিটার উপরে অবস্থিত।

বিমান ও হেলিকপ্টার উভয়টিই নেপালের এ দুর্গম স্থানে পর্যটকদের আনা নেয়া করে থাকে।


আরো সংবাদ

ভারতের হামলার মুখে কতটুকু প্রস্তুত পাকিস্তান? (২৭৭২২)জামালপুরের ডিসির নারী কেলেঙ্কারির ভিডিও ভাইরাল, ডিসির অস্বীকার (২৭৪২৮)কিশোরীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন নোবেল (১৯৩২৬)‘কাশ্মিরি গাজা’য় নজিরবিহীন প্রতিরোধ (১৯০১৯)ভারত কেন আগে পরমাণু হামলা চালাতে চায়? (১৮৭০০)সেনাবাহিনীর গাড়িতে গুলি, পাল্টা গুলিতে সন্ত্রাসী নিহত (১৮৩৫৪)কাশ্মির সীমান্তে পাক বাহিনীর গুলিতে ভারতীয় সেনা নিহত (১৩৭৫২)দাম্পত্য জীবনে কোনো কলহ না হওয়ায় স্বামীকে তালাক দিতে চান স্ত্রী (১২৫৫৯)প্রিয়াঙ্কাকে সরাতে পাকিস্তানের চিঠির জবাব দিয়েছে জাতিসংঘ (৮৩৮৪)রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারকে যে বার্তা দিল চীন (৭৭২৬)



mp3 indir bedava internet