২০ জুন ২০১৯

‘মুসলমান হয়ে যেতে পারেন মাদুরো’

মওলুদ কাভুসোগলু ও নিকোলাস মাদুরো - ফাইল ছবি

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মওলুদ কাভুসোগলু বলেছেন, যে কোনো সময় মুসলমান হয়ে যেতে পারেন ভেনিজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো। গত বছরের সেপ্টেম্বরে ভেনিজুয়েলার রাজধানী কারাকাসে তার সাথে এক বৈঠকের সময় এ কথা বলেছিলেন মাদুরো।

কাভুসোগলু বলেন, ওসমানিয়া সা¤্রাজ্যের প্রতিষ্ঠাতাকে নিয়ে নির্মিত টিভি সিরিজ ‘দ্য রিজারেকশন : এরতুগরুল’ দেখার পর এ মত প্রকাশ করেন মাদুরো।

গতকাল শুক্রবার তুরস্কের আলিনিয়া শহরের আলাদ্দিন কেইকুবাত বিশ্ববিদ্যালয়ে ভাষণ দেয়ার এক পর্যায়ে এ কথা জানান কাভুসোগলু। তিনি বলেন, এ সিরিজটির ব্যাপারে ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন মাদুরো। তিনি বলেন, এতে প্রকৃত ইসলামের কথা বলা হয়েছে। এ সিরিজটির জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে মাদুরো সে সময় বলেছিলেন, তিনি যে কোনোদিন মুসলমান হয়ে যেতে পারেন।

কাভুসোগলু বলেছেন, আমরা মাদুরোর এ ধরনের বক্তব্যে খুশি ও গর্বিত হয়েছি। সূত্র : স্পুটনিক

আরো পড়ুন : উত্তপ্ত ভেনিজুয়েলা : বিভক্ত বিশ্ব
নয়া দিগন্ত অনলাইন, ২৪ জানুয়ারি ২০১৯, ১১:২৮

তেলসমৃদ্ধ দেশ ভেনিজুয়েলায় রাজনৈতিক সঙ্কট ক্রমশ ঘনিভূত হচ্ছে। দেশটিতে নতুন মেয়াদে দায়িত্ব নিয়েছেন প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো, অন্য দিকে বুধবার পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠ বিরোধী দলীয় নেতা জুয়ান গুয়াইডো নিজেকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট হিসেবে ঘোষণা করেছেন।

৩৫ বছর বয়সী গুয়াইডোকে সমর্থন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। অন্যদিকে তুরস্কসহ বেশ কিছু দেশ অবস্থান নিয়েছে প্রেসিডেন্ট মাদুরোর পক্ষে। প্রতিবেশী দেশগুলো বিভক্ত হয়ে পড়েছেদুই শিবিরে। কিছু দেশ নিরপেক্ষ  অবস্থান নিয়েছে। সেনাবাহিনী সমর্থন করছে মাদুরোকে।


গত বছর অনুষ্ঠিত দেশটির প্রেসিডেন্ট নির্বাচন বয়কট করেছিল বিরোধী দল। যে কারণে নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তুলছে অনেকে। এদিকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট হিসেবে গুয়াইডোকে স্বীকৃতি দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। পাশাপাশি ব্রাজিল, কলম্বিয়া, গুয়েতেমালা, কোস্টারিকা পেরুর মতো প্রতিবেশী দেশও তাকে সমর্থন দিয়েছে।

আর এতেই বিষয়টি নিয়ে নতুন জটিলতা দেখা দিয়েছে দক্ষিণ আমেরিকার দেশটিতে। এর জবাবে প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো যুক্তরাষ্ট্রের সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করার ঘোষণা দিয়ে দেশটির কূটনীতিকদের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে দেশ ত্যাগের নির্দেশ দিয়েছেন।

বেশ কয়েকদিন ধরেই রাজধানী কারাকাসে প্রবল বিক্ষোভ চলছে বিরোধী সমর্থকদের। পাল্টা বিক্ষোভ করছে মাদুরো সমর্থকরাও। এসময় সংঘর্ষে ১৩জন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

এদিকে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান প্রেসিডেন্ট হিসেবে নিকোলাস মাদুরোকে সমর্থন জানিয়েছেন। এরদোগানের মুখপাত্র ইবরাহিম কালিন টুইটারে লিখেছেন, ‘মাদুরো, ভাই আমাদের, শক্ত থাকুন। তুরস্ক আপনার পাশে আছে- এরদোগান এমন কথা টেলিফোনে বলেছেন নিকোলাস মাদুরোকে।’

বলিভিয়া ও কিউবার মতো প্রতিবেশী দেশ মাদুরোকে সমর্থন দিয়েছে। মেক্সিকো বলেছে তারা সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচিত ব্যক্তিতে সমর্থন দেবে। এর মানে হচ্ছে তারাও মাদুরোর পক্ষেই রয়েছে। উরুগুয়েসহ কিছুদেশ নিরপেক্ষ অবস্থান নিয়েছে। তারা দেশটিতে শান্তি কামনা করেছে, উভয় পক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন শান্ত থাকতে।

এদিকে ভেনিজুয়েলার সেনাবাহিনী প্রেসিডেন্ট মাদুরোর পক্ষে অবস্থান নিয়েছে। প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ভ্লাদিমির পাদরিনো প্রেসিডেন্ট হিসেবে মাদুরোর প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন। বুধবার তিনি টুইটারে বলেছেন, দেশের সেনাবাহিনী এমন কাউকে স্বীকার করে না যে নিজেকে প্রেসিডেন্ট দাবি করবে কিংবা স্বার্থন্বেষী কেউ চাপিয়ে দেবে।

এর মাধ্যমে মূলত যুক্তরাষ্ট্রের ভুমিকাকে প্রত্যাখান করেছেন তিনি। পাশাপাশি তিনি বলেছেন, সেনাবাহিনী দেশের সংবিধান ও স্বার্বভৌমত্ব রক্ষায় কাজ করবে। সূত্র : আল জাজিরা, বিবিসি, আনাদোলু।


আরো সংবাদ