১৫ নভেম্বর ২০১৯

অগ্নিকাণ্ডের পরে এখনো অরক্ষিত চুড়িহাট্টা

ঢাকার চুড়িহাট্টায় অগ্নিকাণ্ডের পরে ঘিঞ্জি রাস্তাগুলোর মধ্যেই অভিযান পরিচালনা করছে ফায়ার সার্ভিস -

চলতি বছরে পুরান ঢাকার চুড়িহাট্টায় অগ্নিকাণ্ডে ৭১ জন মারা যায়। ওই ঘটনায় দগ্ধ আরো কয়েক শ’ মানুষ হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দারা বলে, বাবুবাজার সেতুসংলগ্ন আরমানিটোলায় রাসায়নিক, ইসলামপুরে কাপড়, নয়াবাজারে কাগজের বড় পাইকারি বাজার। এসব এলাকায় মাঝেমধ্যেই ছোটখাটো অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটলে তা নিয়ন্ত্রণের কোনো ব্যবস্থা এখানে নেই। রাজধানীর অন্যান্য এলাকা থেকে পুরান ঢাকা অনেক ঘিঞ্জি। রাস্তাগুলো সরু। দিনভর যানজট লেগে থাকে। আগুন লাগলে দুর্ঘটনার সময় দ্রুত ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি ঢুকতে পারে না। অপরিকল্পিত এই এলাকায় পানি মজুদেরও কোনো ব্যবস্থা নেই। অথচ কিছু দিন পরপরই এই এলাকায় ছোট-বড় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। গত সপ্তাহেও ইসলামপুরে একটি কাপড়ের গুদামে আগুন লেগেছিল। এসব কারণে বাবুবাজারে ফায়ার স্টেশন খুবই জরুরি বলে জানিয়েছে স্থানীয় বাসিন্দারা।
গত ২০ ফেব্র“য়ারি রাতে পুরান ঢাকার চকবাজারের চুড়িহাট্টায় অগ্নিকাণ্ডের পর বাবুবাজারে এক সপ্তাহের মধ্যে ফায়ার স্টেশন স্থাপনের কাজ শুরুর ঘোষণা দিয়েছিল ফায়ার সার্ভিস। গত ৩০ মার্চ আরমানিটোলায় আহমেদ বাওয়ানী একাডেমি স্কুল অ্যান্ড কলেজে ‘অগ্নিপ্রতিরোধ সচেতনতা’ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বাবুবাজার সেতুর নিচে একটি ফায়ার স্টেশন নির্মাণের দাবি জানান আরমানিটোলা সমাজ কল্যাণ সংসদের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন। তখন বাবুবাজারে একটি ফায়ার স্টেশন নির্মাণের কথা জানান ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক আবদুল হালিম।
আর স্টেশনের স্থাপনা তৈরির প্রতিশ্র“তি দেয় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি)। কিন্তু এখনো স্টেশন নির্মাণের কাজ শুরু হয়নি। এমনকি জায়গাই ঠিক করা হয়নি। কবে নাগাদ কাজ শুরু হবে, তাও নিশ্চিত করে বলতে পারেননি কেউ।
গত ৮ এপ্রিল আরমানিটোলায় রাসায়নিক সঙ্কট ও সমাধান নিয়ে পৃথক আরেকটি আলোচনা সভা হয়। ওই সভায় এক সপ্তাহের মধ্যে বাবুবাজার সেতুর নিচে ফায়ার স্টেশন স্থাপনের কাজ শুরুর ঘোষণা দেন ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদফতরের পরিচালক (অপারেশন অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স) মেজর শাকিল নেওয়াজ। সে সময় ডিএসসিসির মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন স্টেশনের স্থাপনা তৈরির প্রতিশ্র“তি দিয়েছিলেন।
জাকির হোসেন বলেন, বাবুবাজার সেতুর নিচে পর্যাপ্ত ফাঁকা জায়গা আছে। এই জায়গা থেকে খুব সহজেই চারদিকে (ইসলামপুর রোড, মিটফোর্ড রোড, বেড়িবাঁধ ও নয়াবাজার) যাওয়া যায়। তাই সেতুর নিচে ফায়ার স্টেশন নির্মাণ করতে ফায়ার সার্ভিসকে অনুরোধ জানান তারা। তাদের কাছ থেকে প্রতিশ্র“তিও মেলে। কিন্তু তারা এখনো কাজ শুরু করেনি। কবে করবে বা আদৌ করবে কি না, তাও জানা যাচ্ছে না।
এ বিষয়ে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদফতরের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো: সাজ্জাদ হোসাইন বলেন, ওই জায়গায় ফায়ার স্টেশনের স্থাপনাটি ডিএসসিসির করে দেয়ার কথা। কিন্তু তারা এখনো তা করেনি। স্থাপনাটি বুঝে পেলে এক দিনের মধ্যেই পর্যাপ্ত জনবল, পানির গাড়িসহ আনুষঙ্গিক যন্ত্রপাতি দেয়া যাবে।

 


আরো সংবাদ

আগুন নেভাতে সাহসী ভূমিকা রাখা ১৬ ব্যক্তিকে সংবর্ধনা দিলো হোটেল কস্তুরি ঘুষ সন্ত্রাস মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে বাংলাদেশ-নেপাল যোগাযোগ ও বাণিজ্য বাড়ানোর পরামর্শ রাষ্ট্রপতির মেহেদির রঙ মুছতে না মুছতেই... সর্বদা আল্লাহর জিকিরে থাকতে হবে : আল্লামা শফী খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা অত্যন্ত খারাপ, তাকে জামিনে মুক্তি দিন রোহিঙ্গা নিপীড়নের অভিযোগ তদন্তের আদেশ দিয়েছে আন্তর্জাতিক আদালত ৩০ বছর পর সগিরা হত্যার রহস্য উদঘাটন : চার আসামি গ্রেফতার ট্রেন দুর্ঘটনার পেছনে কোনো ষড়যন্ত্র থাকলে সরকার খতিয়ে দেখবে : প্রধানমন্ত্রী অর্থমন্ত্রীর পরিবারের আয়কর ৭ কোটি ৬ লাখ ৭৮ হাজার টাকা না’গঞ্জে আদালত চত্বরে বাদি ও আসামিপক্ষের মারামারি

সকল