১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

১১ হাজার অবৈধ বিদেশি নাগরিককে নিজ দেশে ফেরত পাঠাচ্ছে সরকার

-

বাংলাদেশে অবৈধভাবে অবস্থান করা ১১ হাজার বিদেশি নাগরিককে নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। ভিসার মেয়াদ ফুরিয়ে যাওয়ার পরও অবৈধভাবে বাংলাদেশে অবস্থান করা এই ১১ হাজার বিদেশিকে চিহ্নিত করা হয়েছে। চিহ্নিত এসব বিদেশি নাগরিকের বেশিরভাগই নাইজেরিয়া, তানজানিয়ার মত আফ্রিকান দেশের নাগরিক।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আইন-শৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভা শেষে কমিটির সভাপতি মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক জানিয়েছেন। সভায় বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুনশি, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, নৌ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব ও আইন-শৃঙ্খলা বহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী বলেন, এদেশে এসে পরবর্তীতে ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে অনেকে যায় না, থেকে যায়। তারা যেন থাকতে না পারে, সেজন্য কারা মেয়াদোত্তীর্ণ অবস্থায় আছে তাদের চিহ্নিত করা আমাদের যৌথ সভার সিদ্ধান্ত ছিল। সফলতার সাথে গোয়েন্দা সংস্থা তাদের চিহ্নিত করেছে। চিহ্নিত করা গেলেও তাদের দেশে ফেরত পাঠানো যাচ্ছে না জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, এখন সমস্যা দেখা যাচ্ছে যে ফেরত যাবে সেই টাকাও নেই ওদের কাছে। সেসব দেশের দূতাবাসও নেই আমাদের দেশে যে তাদের কাছে হস্তান্তর করব। এই অবৈধ অভিবাসীদের কারাগারে রাখলে সেখানেও তারা অপরাধের ঝামেলায় জড়াবে মন্তব্য করে মোজাম্মেল হক বলেন, সিদ্ধান্ত নিয়েছি, সরকারের কাছে অনুরোধ করব কিছু টাকা বরাদ্দ দেয়ার জন্য, যাতে অবৈধভাবে বসবাসকারী লোকগুলোকে তাদের দেশে ফেরত পাঠানো যায়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, বিভিন্ন দেশের নাগরিকরা ভিসা নিয়ে বাংলাদেশে এসে ব্যবসা করছে। অনেকে অপরাধের সঙ্গে জড়াচ্ছে। এদের অনেকে জেলে রয়েছে, যাদের সাজার মেয়াদও শেষ হয়েছে। এছাড়া ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পর অবৈধভাবে এ দেশে অবস্থান করছে। সব মিলিয়ে প্রায় ১১ হাজার বিদেশি নাগরিক রয়েছে, যাদের আমরা নিজ নিজ দেশে পাঠিয়ে দেবো। এসব অবৈধ অভিবাসী অন্য কোনো অপরাধে জড়িত কি না জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও অবৈধভাবে অবস্থান করছে বা কোনো ক্রাইমে জড়িয়ে পড়েছে, তারাই জেল খানায় রয়েছেন। তাদের দূতাবাসে যোগাযোগ করার পরও তাদের নিয়ে যাওয়া হচ্ছে না এরকম সংখ্যাও রয়েছে। যারা অবৈধভাবে রয়েছে, তারা ক্রাইমের সাথে জড়িয়ে পড়ছে। শুধু ক্রাইমের সাথে জড়িত রয়েছে- তা নয়, যারা ব্যবসা বাণিজ্য করতে এসেছিল, মেয়াদ শেষে থেকে গেছে সেরকমও আছে। তাদের মধ্যে কতজন কারাগারে রয়েছে- জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এ বিষয়ে পরে জানানো হবে।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী বলেন, যাদের ধরতে পারছি, কারাগারেও দিচ্ছি। কাজেই নতুনভাবে চিন্তা করছি, সরকারের পয়সা দিয়েই তাদের দেশে ফেরত পাঠাব। আপনারা তো বোঝেন, কারা থাকে, ভাল নাগরিক তো থাকে না। উত্তর কোরিয়ার কোনো নাগরিক অবৈধভাবে বাংলাদেশে রয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ মুহূর্তে বলা যাচ্ছে না। রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অপরাধ প্রবণতা রোধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, অনেক রোহিঙ্গা বাংলাদেশের পাসপোর্ট নিয়ে বিদেশে গেছে। সেসব পাসপোর্ট বাতিল করা হয়েছে, নতুন কেউ যেন পাসপোর্ট না পায় সে ব্যবস্থাও করা হয়েছে।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী বলেন, মেট্রোরেলের কাজে ঢাকা শহরে চলাচলের দুর্ভোগ লাঘবেও উদ্যেগ নেয়া হচ্ছে। দুর্ভোগ সহনীয় পর্যায়ে নিয়ে আসতে মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করা হয়েছে। কাজ শুরু করার আগে যেন ঘেরাও করে না রাখা হয়, কাজ শুরুর সময় যেন রাস্তা বন্ধ করা হয়। 


আরো সংবাদ

দৃশ্যমান হচ্ছে বিশ্বের সর্ববৃহৎ ক্রিকেট স্টেডিয়ামের (২০৬৮৮)মাংস রান্নার গন্ধ পেয়ে বাঘের হানা, জঙ্গলে নিয়ে গিয়ে জ্যান্ত খেল নারীকে (১৭৯১২)ব্রিটেনের প্রথম হিজাব পরিহিতা এমপি বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত আপসানা (১৪৪০২)চিকিৎসার নামে নারীর গোপনাঙ্গে হাত দিতেন ভারতীয় এই চিকিৎসক (১১৪৮১)ব্রিটেনে বাংলাদেশ-ভারত-পাকিস্তানের যারা নির্বাচিত হলেন (১১৪১৬)নির্দেশনার অপেক্ষায় বিএনপির তৃণমূল (৯৫০১)দৈনিক সংগ্রাম কার্যালয়ে হামলা, সম্পাদক পুলিশ হেফাজতে (৯৪৪১)আরো এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র কিনবে তুরস্ক; নয়া হুমকি যুক্তরাষ্ট্রের (৭৯৬১)ক্ষমা চাওয়ার প্রশ্নই আসে না : রাহুল (৭৮০৭)বিক্ষোভের আগুন আসামে এতটা স্বতঃস্ফূর্তভাবে ছড়াবে, ভাবেননি অমিত শাহেরা (৭০৫৬)



hacklink Paykwik Paykasa
Paykwik