১৮ জুন ২০১৯

ট্রেনের অগ্রিম টিকিট : কাউন্টারে শেষ, অ্যাপে অবিক্রীত

ঈদে বাড়ি ফেরার ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শেষ হলেও মোবাইল অ্যাপে দেয়া টিকেটের এখনো পাঁচ হাজার ৩৫০টি অবিক্রিত রয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি অবিক্রিত রয়েছে ৪ জুন বাড়ি ফেরার টিকিট।

অন্যদিকে ৩১ মে’র টিকিট প্রায় সবগুলোই বিক্রি হয়েছে। এই তারিখের মাত্র ১ টি টিকিট অবিক্রিত হয়েছে। সোমবার দুপুর ১ টায় কমলাপুরে মোবাইল অ্যাপ এর দায়িত্বপ্রাপ্ত (সিসিএসআরটিএস) অপারেশন ম্যানেজার মো: শামীমুল আলম নয়া দিগন্তকে এসব তথ্য জানান।

উল্লেখ্য এবছর মোবাইল অ্যাপে মোট ৫১ হাজার টিকিট বিক্রির টার্গেট দেয়া হয়েছে একটি বেসরকারি কোম্পানীকে। মোবাইল অ্যাপ এর সার্ভার রুমের সূত্র জানা যায়, ৩১ মে’ তারিখের ট্রেনের টিকিটের চাহিদা সবচেয়ে বেশি। ঐ তারিখের টিকিট ছিল মোট ৯ হাজার দুইশ’ ৫৭টি। এদিনের মাত্র একটি টিকিট অবিক্রিত আছে। তবে এটিও যেকোন সময় বিক্রি হয়ে যাবে। কারন, একজন ক্রেতা ঘরে বসেই যেকোন সময়ে যেকোন স্থানের টিকিট কিনতে পারেন।

এছাড়া মোবাইল অ্যাপে ১ জুনের মোট টিকিট ছিল ১০ হাজার ২১ টি। এদিনেরও এক হাজার তিনশ’ ৮১টি টিকিটি অবিক্রিত আছে। ২ জুনের মোট টিকিট ছিল ১০ হাজার পাঁচশ’ ৬১ টি। এদিনেরও এক হাজার পাঁচশ’ ১২টি টিকিট অবিক্রিত আছে। ৩ জুনের মোট টিকিট ছিল ১০ হাজার পাঁচশ’ ৬১ টি। এদিনেরও অবিক্রিত টিকিট আছে সাতশ’ ৫টি। একই পরিমান টিকিট ছিল ৪ জুনের জন্যও; কিন্তু এদিনের অবিক্রিত টিকিট আছে এক হাজার সাতশ’ ৫১টি।

অপারেশন ম্যানেজার মো: শামীমুল আলম জানান, এই অবিক্রিত টিকিট শেষ পর্যন্ত থাকবে না। এখন পর্যন্ত (সোমবার দুপুর ১ টা) আমাদের কাছে যে রিপোর্ট আছে সেই মোতাবেক এই রিপোর্ট পাওয়া গেছে। কেননা প্রতি মিনিটেই মানুষ মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করে টিকিট কিনছে। এছাড়া ট্রেন ষ্টেশন ছাড়ার ১০ মিনিট আগেও যে কেউ টিকিট কিনতে পারবেন। কাজেই একটি টিকিটও শেষ পর্যন্ত অবিক্রিত থাকবে না বলেও তিনি আশা করেন। রেলওয়ে সূত্র জানায়, এবছর টিকিটের সবচেয়ে বেশি চাহিদা রেলের পশ্চিমাঞ্চলের যাত্রীদের । আর সবচেয়ে কম চাহিদা সিলেট রুটের ট্রেনের।


আরো সংবাদ