২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

৩৩ শতাংশ বাসের ফিটনেস অগ্রহণযোগ্য নয়

৩৩ শতাংশ বাসের ফিটনেস সার্টিফিকেট গ্রহণযোগ্য নয়। ৫৬ শতাংশের গতি নিয়ন্ত্রক সিল ঠিক নেই। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে এসেছে। প্রতিবেদন তৈরির ক্ষেত্রে ৩৯টি বাসের ওপর জরিপ করা হয়।

বৃহস্পতিবার বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি মো. আশরাফুল কামালের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে এই প্রতিবেদন দাখিল করা হয়।

এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্টের নির্দেশ অনুসারে কমিটি গঠন করে বিআরটিএ। যানবাহনের ওপর জরিপ চালিয়ে তারা এই প্রতিবেদন প্রস্তুত করে। পরে প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করা হয়।

বিআরটিএর পক্ষে প্রতিবেদনটি আদালতে দাখিল করেন আইনজীবী রফিকুল ইসলাম। রিট আবেদনকারীর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী তানভীর আহমেদ।

জরিপের সীমাবদ্ধতা হিসেবে প্রতিবেদনে বলা হয়, কমিটি কর্তৃক পূর্বনির্ধারিত সময় ও স্থান অনুযায়ী সার্ভে করা হয়। ধারণা করা হয়- সার্ভের বিষয়টি কোনো না কোনোভাবে প্রকাশ হওয়ায় অনেক যানবাহন (সম্ভবত খারাপ) সংশ্লিষ্ট স্থান ও সময় এড়িয়ে চলেছে।

প্রতিবেদনের সুপারিশে বলা হয়, সড়ক দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি প্রতিরোধে, সড়কে শৃঙ্খলা আনতে আনফিট বা ত্রুটিপূর্ণ যানবাহনের চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা জরুরি। সমস্যার ব্যাপকতা ও তার মাত্রা বোঝার জন্য যানবাহনের বিশেষ করে গণপরিবহনের ওপর বিজ্ঞানভিত্তিক সার্ভে পরিচালনা করা খুবই জরুরি। এ ক্ষেত্রে কোনো বিশেষায়িত গবেষণাধর্মী প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে তা করা যেতে পারে।


আরো সংবাদ

Hacklink

ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme