১৯ অক্টোবর ২০১৯

অবশেষে কারাবন্দীদের নাশতার মেনু বদল

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার - সংগৃহীত

অবশেষে কারাবন্দীদের সকালের খাবারের মেনু পরিবর্তন হচ্ছে। এতদিন ধরে কারাবন্দীদের সকালের নাশতা দেয়া হতো রুটি ও গুড়। আগামীতে এই মেনু পরিবর্তন করে দিন ভেদে খিচুড়ি, হালুয়া, রুটি, সবজি দেয়া হবে। এতে খাবার খাতে অতিরিক্ত ব্যয় করতে হবে। কারাবন্দীদের সকালের নাশতার মেনু পরিবর্তনের জন্য অতিরিক্ত ব্যয় হবে ২০ কোটি ৪০ লাখ টাকা। এই অতিরিক্ত অর্থ চেয়ে ইতোমধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে অর্থ মন্ত্রণালয়ের কাছে আবেদন করা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট এক সূত্র জানিয়েছে।

সূত্র জানায়, কারাবন্দীদের সকালের নাশতার মেনু পরিবর্তন করার জন্য গত বছরে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে অনুরোধ করে এক পত্র দেয়া হয়। এ পত্রে উল্লেখ করা হয়, কারাবন্দীদের সকালের নাশতার মেনু পরিবর্তনের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে অনুশাসন পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে গত বছরেরে শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে একটি অনুরোধপত্র স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে পাঠানো হয়। এই সূত্র উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে গত মাসে অর্থ বিভাগে পাঠানো এ সম্পর্কিত এক পত্রে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘রংপুরের জেলা প্রশাসক ২০১৮ সালের মার্চ মাসে রংপুর কেন্দ্রীয় কারাগার পরিদর্শন করেন। এ সময় ওই কারাগারের বন্দীরা জানান যে, প্রতিদিন সকালের নাশতায় রুটি ও গুড় প্রদান করা হয়। সকালের খাবার রুটি ও গুড়ের পরিবর্তে খিচুড়ি/হালুয়া রুটি/সবজি রুটি প্রদানের জন্য তারা আবেদন করেন। জানা যায়, ডায়েট স্কেল অনুযায়ী ব্রিটিশ আমল থেকেই কারাবন্দীদের সকালে রুটি ও গুড় প্রদান করা হয়।’ পত্রে আরো উল্লেখ করা হয়, ‘পরীক্ষা-নিরীক্ষা পূর্বক কারাবন্দীদের খাবারের মেনুতে পরিবর্তন আনয়নের জন্য সুরক্ষা সেবা বিভাগকে নির্দেশনা দেয়া যেতে পারে।’

জানা গেছে, এই নির্দেশনা পাওয়ার পর যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ২০১৮ সালের ৬ মে কারা অধিদফতরকে অনুরোধ জানানো হয়। এ বিষয়ে কারাবন্দীদের সকালের নাশতায় সপ্তাহে দুই দিন খিচুড়ি, একদিন হালুয়া-রুটি ও চার দিন সবজি-রুটি প্রদানের বিষয়ে অনুমোদন প্রদান এবং ‘৪৮৯১ খোরাকি ব্যয়’খাতে অতিরিক্ত ২০ কোটি ৪০ লাখ ৮০ হাজার টাকা বরাদ্দ প্রদানের জন্য কারা মহাপরিদর্শক গত বছরের ৩০ মে প্রস্তাব প্রেরণ করেন বলে জানা গেছে সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রীর এ বিষয়ে অনুশাসন প্রতিপালনের জন্য কারা অধিদফতর খোরাকি ব্যয় খাতে অতিরিক্ত বরাদ্দের জন্য ২০১৮ সালের ১৯ জুন অর্থ বিভাগে একটি প্রস্তাব প্রেরণ করে। কারা অধিদফতরের ওই খাতে চলতি ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে (কেন্দ্রীয় কারাগার ৮৭ কোটি টাকা, জেলা কারাগারে ১৩৭ কোটি ৪০ লাখ টাকা) মোট ২২৪ কোটি ৪০ লাখ টাকা বরাদ্দ পাওয়া যায়।

এ অবস্থায় প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন মান্য করা জন্য কারাবন্দীদের সকালের নাশতায় সপ্তাহে দুই দিন খিচুড়ি, একদিন হালুয়া-রুটি ও চার দিন সবজি-রুটি প্রদানের জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অর্থ বিভাগের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, কারাবন্দীদের নাশতার মেনু পরিবর্তনের জন্য যে অতিরিক্ত অর্থ বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে তা শিগগিরই অনুমোদন দেয়া হবে। কারণ কারাবন্দীদের দীর্ঘ দিনের যে নাশতার মেনু রয়েছে তা সময়ের কারণে পরিবর্তন করা জরুরি হয়ে পড়েছে।


আরো সংবাদ

দেশী-বিদেশী পাইলটরা লেজার লাইট আতঙ্কে (৩৯৯৩৬)পাকিস্তান বনাম ভারত যুদ্ধপ্রস্তুতি : কে কতটা এগিয়ে (২৮৪৮৪)ভারতীয় বিমানকে ধাওয়া পাকিস্তানের, আফগানিস্তান গিয়ে রক্ষা (২১৮৯৮)দুই বাঘের ভয়ঙ্কর লড়াই ভাইরাল (ভিডিও) (২০৬১৪)শীর্ষ মাদক সম্রাটের ছেলেকে আটকে রাখতে পারলো না পুলিশ, ব্যাপক দাঙ্গা-হাঙ্গামা (১৪৭১৯)রৌমারী সীমান্তে বিএসএফ’র গুলি ও ককটেল নিক্ষেপ! (১৪৫৭২)বিশাল বিমানবাহী রণতরী নির্মাণ চীনের, উদ্বেগে যুক্তরাষ্ট্রসহ অনেকে (১৪৩৩৮)‘গরু ছেড়ে মহিলাদের দিকে নজর দিন’,: মোদির প্রতি কোহিমা সুন্দরীর পরামর্শে তোলপাড় (১৩৫৮৪)বিএসএফ সদস্য নিহত হওয়ার বিষয়ে যা বললো বিজিবি (১১৮৬৩)লেন্দুপ দর্জির উত্থান এবং করুণ পরিণতি (৯৩৩৭)



portugal golden visa