২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বিপাকে ২৩ হাজার হজযাত্রী

হজযাত্রী - ছবি : সংগৃহীত

এ বছরের হজের ফ্লাইট দুই দিন আগে শুরু হলেও এখনো ২৩ হাজার হজযাত্রীর বিমান টিকিটের অনুকূলে পে-অর্ডার ইস্যু করেনি ১৪৪টি এজেন্সি। এর মধ্যে ৫৬টি এজেন্সি তাদের হজযাত্রীদের অনুকূলে একটি পে-অর্ডারও ইস্যু করেনি। এতে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে ধর্ম ও বিমান মন্ত্রণালয়ে। কী কারণে এজেন্সিগুলো হজযাত্রীদের অনুকূলে বিমান টিকিট নিশ্চিত করছে না সে বিষয়টি জানতে এসব এজেন্সিকে তলব করেছে ধর্ম মন্ত্রণালয়। 

এ বছর বাংলাদেশ থেকে মোট এক লাখ ২৬ হাজার ৭৯৮ জন হজে যাবেন। এর মধ্যে ছয় হাজার ৭৯৮ জন সরকারি ব্যবস্থাপনায় এবং এক লাখ ২০ হাজার বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় মক্কায় যাবেন। মোট ৫২৮টি এজেন্সির মাধ্যমে বেসরকারি ব্যবস্থাপনার হজযাত্রীরা সৌদি আরবে যাবেন।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স এবং সাউদিয়া এয়ার লাইন্স এসব হাজীদের বহন করবে। বাংলাদেশ বিমান ১৮৭টি ফ্লাইটে ৬৪ হাজার ৯৬৭ জন হজযাত্রী পরিবহন করবে এবং সাউদিয়া এয়ারলাইন্স ৬১ হাজার ৮৩১ জন হজযাত্রী পরিবহন করবে। এ বছর নিয়মানুযায়ী আগে হজযাত্রীদের বিমানের টিকিট কাটতে হবে এরপর ভিসার জন্য আবেদন করা যাবে। কিন্তু এখনো পর্যন্ত ২৩ হাজার ১৯১ জন হজযাত্রীর অনুকূলে টিকিট কাটার প্রক্রিয়া শুরু করেনি ১৪৪টি এজেন্সি। এর মধ্যে ৫৬টি এজেন্সি তাদের হজযাত্রীদের অনুকূলে পে-অর্ডারও ইস্যু করেনি। এ ৫৬ এজেন্সির হজযাত্রী রয়েছে ১২ হাজার ৯৪৯ জন। এ ছাড়া ৮৮টি এজেন্সি তাদের মোট ২১ হাজার ১৭৯ জন হজযাত্রীর মধ্যে ১০ হাজার ৯৩৭ জন হজযাত্রীর জন্য টিকিট কাটলেও ১০ হাজার ২৪২ জন হজযাত্রীর জন্য কোনো পে-অর্ডারও ইস্যু করেনি। 

জানা যায়, বিগত বছরগুলোতে কোনো হজ ফ্লাইট বাতিল হলে পরে অতিরিক্ত স্লট নিয়ে সঙ্কটের মোকাবেলা করা যেত। কিন্তু সৌদি সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ আগেই জানিয়ে দিয়েছে, এ বছর সৌদি আরবে বিমানের ফ্লাইট পরিচালনার ক্ষেত্রে অতিরিক্ত কোনো স্লট পাওয়া যাবে না। এ জন্য কোনো ফ্লাইট বাতিল হলে পরে সেই হজযাত্রীরা আর হজে যেতে পারবেন না। এ কারণে এখনো পর্যন্ত বিপুলসংখ্যক হজযাত্রীর অনুকূলে এজেন্সিগুলো টিকিট না কাটায় ধর্ম ও বিমান মন্ত্রণালয়ে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা দেখা দিয়েছে। বিমানের টিকিট না কাটার কারণ জানতে এজন্য ধর্ম মন্ত্রণালয় গতকাল পৃথক দু’টি নির্দেশনায় ১৪৪টি এজেন্সিকে তলব করেছে। এর মধ্যে মোটেও টিকিট না কাটা ৫৬ এজেন্সিকে আজ বেলা ৩টায় ধর্ম মন্ত্রণালয়ে ডাকা হয়েছে। আর যে ৮৮টি এজেন্সি ৫০ এর বেশি হজযাত্রীর টিকিট কাটেনি তাদের আগামীকাল সকাল এবং বিকেলে দুই ভাগে ভাগ করে ডাকা হয়েছে। 

এদিকে জানা যায়, এর বাইরেও বেশ কিছু এজেন্সি ৫০ এর কম হজযাত্রীর টিকিট এখনো নিশ্চিত করেনি। তারা যদি দ্রুত টিকিট নিশ্চিত না করে তাহলে তাদেরকেও তলব করা হতে পারে। 

এ ব্যাপারে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব (হজ) মো: হাফিজ উদ্দিন নয়া দিগন্তকে বলেন, কী কারণে এজেন্সিগুলো তাদের হজযাত্রীদের অনুকূলে পে-অর্ডার ইস্যু করে টিকিট নিশ্চিত করছে না তা আমাদের বোধগম্য নয়। এ জন্য তাদের মন্ত্রণালয়ে ডাকা হয়েছে। তিনি বলেন, এ বছর সৌদি কর্র্তপক্ষ নতুন করে কোনো স্লট দেবে না। সেক্ষেত্রে এখনই বিমানের টিকিট নিশ্চিত না করলে হজযাত্রীদের হজ নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিতে পারে। এ জন্য আমরা আগেভাগেই টিকিট নিশ্চিত করতে চাচ্ছি।


আরো সংবাদ