১৭ অক্টোবর ২০১৯

ঈদযাত্রার দুর্ঘটনায় নিহত ২৭৮

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন হোসেন জিল্লুর রহমান - সংগৃহীত

এবার ঈদযাত্রায় দুর্ঘটনায় ১৩ দিনে ২৭৮ জন নিহত হয়েছেন। আহতহ হয়েছেন ১ হাজার ৩৫ জন। সড়ক, রেল ও নৌপথে দুর্ঘটনায় এ প্রাণহানীর ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে শুধু সড়কপথে নিহত হয়েছেন ২৫৯ জন। ঈদুল আজহা উপলক্ষে ঈদযাত্রায় দুর্ঘটনা ও হতাহতের এ তথ্য তুলে ধরেছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি।

আজ শুক্রবার সকালে রাজধানীতে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী।

গণমাধ্যমে প্রকাশিত দুর্ঘটনার এসব তথ্য তুলে ধরে বলা হয়, এবার ১৬ থেকে ২৮ আগস্ট পর্যন্ত ১৩ দিন ঈদযাত্রা বলে ধরা হয়েছে। এই সময়ে সড়ক, রেল ও নৌপথে মোট ২৭০টি দুর্ঘটনা ঘটেছে। এতে নিহত হয়েছেন ২৭৮ জন। আর আহত হয়েছেন ১ হাজার ৩৫ জন। দুর্ঘটনার বেশির ভাগই ঘটেছে সড়কপথে। ওই ১৩ দিনে ২৩৭টি সড়ক দুর্ঘটনায় ২৫৯ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ৬০ জন।

সড়ক দুর্ঘটনার বেশির ভাগই আবার ঘটেছে বাসে। বাস দুর্ঘটনার ঘটনা ঘটেছে ২৯ দশমিক ১৮ শতাংশ। কাভার্ড ভ্যান ও ট্রাক দুর্ঘটনা ২৩ দশমিক ৬ শতাংশ ও মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা ঘটেছে ১৬ দশমিক ৭২ শতাংশ। এ ছাড়া রেলপথে ১৯টি দুর্ঘটনায় ১৫ এবং নৌপথে ১৪টি দুর্ঘটনায় ৪ জন নিহত হয়েছেন। নৌ-দুর্ঘটনায় ৮ জন নিখোঁজ রয়েছেন এখনো। তাদের নিহত ব্যক্তিদের তালিকায় ধরা হয়নি।

দুর্ঘটনাগুলোর কারণ হিসেবে সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, ফিটনেসবিহীন যানবাহন, পণ্যবাহী পরিবহনে যাত্রী বহন, অদক্ষ চালক, মহাসড়কে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে নসিমন-করিমন চলাচল, বিরতিহীনভাবে যানবাহন চালানোর কারণে দুর্ঘটনাগুলো ঘটেছে।

সংবাদ সম্মেলনে সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ও নিরাপদ সড়কের জন্য গঠিত জোট সেভ রোড অ্যান্ড ট্রান্সপোর্ট অ্যালায়েন্সের (স্রোতা) আহ্বায়ক হোসেন জিল্লুর রহমান বলেন, ‘আমাদের দেশে নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়া হয় বা নেওয়ার কথা বলা হয়। কিন্তু জবাবদিহির জায়গাটি নিশ্চিত করা হয় না। আমাদের এখানে যাঁরা নীতিনির্ধারণ করেন, তাঁরাই আবার মালিক-শ্রমিক প্রতিনিধি। জবাবদিহির ব্যাপারে যে অনাগ্রহ রয়েছে, এর মূলে রয়েছে এই স্বার্থের সংঘাত।’

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) সাবেক চেয়ারম্যান আয়ুবুর রহমান, আইনজীবী জ্যোতির্ময় বড়ুয়া।


আরো সংবাদ

আমি অনেকটা অলৌকিকভাবে ফিরে এসেছি : ওবায়দুল কাদের মা ইলিশ বহনের অপরাধে ৩ পুলিশ বরখাস্ত আওয়ামী লীগের এজেন্ডা মানুষকে পিটিয়ে হত্যা করা : মান্না নিয়মের বাইরে যাবেন না, ইউজিসিকে প্রধানমন্ত্রী ১৮ বছর পর মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেন নিরাপরাধ বাবলু শেখ খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জাতীয় পতাকা অবমাননা মামলার শুনানি ৪ নভেম্বর নড়াইলে বয়োঃবৃদ্ধ দম্পতিকে মারধর করে বাঁশ ও গরু লুট আসাদ দিবসের মতো আবরার দিবস পালন করা হবে: ডা: জাফরুল্লাহ ‘কর্তব্য অবহেলায়’ পদ খোয়ালেন সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালের পিপি দুই ভাইয়ের শত্রুতায় চিড়েচ্যাপ্টা হলো বসতবাড়ি ৯৪ বছর বয়সেও দিনে ১৮ ঘণ্টা কাজ করেন মাহাথির

সকল

ট্রাম্পের 'অতুলনীয় জ্ঞানের' সিদ্ধান্তে বদলে গেল সিরিয়া যুদ্ধের চিত্র (৩২১৮৮)ভারতের সাথে তোষামোদির সম্পর্ক চাচ্ছে না বিএনপি (১৮৪৫৫)মেডিকেলে চান্স পেলো রাজমিস্ত্রির মেয়ে জাকিয়া সুলতানা (১৪৯৪৬)তুরস্ককে নিজ ভূখণ্ডের জন্য লড়াই করতে দিন : ট্রাম্প (১৪৭০৩)আবরারকে টর্চার সেলে ডেকে নিয়েছিল নাজমুস সাদাত : নির্যাতনের ভয়ঙ্কর বর্ণনা (১৩৮১৫)পাকিস্তানকে পানি দেব না : মোদি (১১২৭৪)১১৭ দেশের মধ্যে ১০২ : ক্ষুধা সূচকে বাংলাদেশ-পাকিস্তানের চেয়ে পিছিয়ে ভারত (৮৯৭০)তুহিনকে বাবার কোলে পরিবারের সদস্যরা হত্যা করেছে : পুলিশ (৮৮৮৫)বাঁচার লড়াই করছে ভারতে জীবন্ত কবর দেয়া মেয়ে শিশুটি (৮৬৮৭)এক ভাই মেডিকেলে আরেক ভাই ঢাবিতে (৮৫২৩)



astropay bozdurmak istiyorum
portugal golden visa