১৫ অক্টোবর ২০১৯

ক্যামব্রিজে প্রত্যাখ্যাত হয়ে এমআইটি ও হার্ভার্ডে ডাক পেলো ইউসুফ

ক্যামব্রিজে প্রত্যাখ্যাত হয়ে এমআইটি ও হার্ভার্ডে ডাক পেলো ইউসুফ - ছবি : নয়া দিগন্ত

ক্যামব্রিজ ছাড়াও ব্রিটেনের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ভর্তি করতে অনিহা প্রকাশ করলেও বিশ্বসেরা এমআইটি ও হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় তাকে সর্বোচ্চ বৃত্তি দিয়ে ভর্তির প্রস্তাব দেয়। সুযোগ হাতছাড়া না করে বিশ্ববিখ্যাত ম্যাসাচুসেটস ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজিতে (এমআইটি) পদার্থবিদ্যা ও অ্যারোস্পেস ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়তে যাচ্ছেন তিনি। দুই লাখ পঞ্চাশ হাজার পাউন্ডের শিক্ষাবৃত্তির মান বাংলাদেশী মুদ্রায় ২ কোটি ৬৫ লাখ টাকার বেশি। ১৮ বছরের মেধাবী ও সৌভাগ্যবান ওই শিক্ষার্থী হচ্ছেন বাংলাদেশি-ব্রিটিশ মোহাম্মদ ইউসুফ আহমেদ।

পূর্ব লন্ডনের নিউহ্যাম কলেজিয়েট সিক্সথ ফর্ম কলেজে পড়াশোনা করেছেন ইউসুফ আহমেদ। এই কলেজ থেকে তিনি নির্বাচিত শিক্ষার্থী দলের সাথে গত বছর আইভি লিগ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা সফরে যুক্তরাষ্ট্র যান। সেখানে তারা বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠদানে অংশগ্রহণ, শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সাক্ষাৎ এবং ভালো কলেজে ভর্তির বিষয়াদি সম্পর্কে অবগত হন। এ সফরের পূর্বে কলেজের পক্ষ থেকে শিক্ষার্থীদের আমেরিকার স্যাট পরীক্ষার জন্য আমেরিকা থেকে বিশেষায়িত শিক্ষক আনা হয়েছিল। স্যাট পরীক্ষায় ইউসুফ অত্যন্ত কৃতিত্বের সাথে উত্তীর্ণ হন।

এরপর তার কাছে এমআইটির শিক্ষাবৃত্তির চিঠি আসে। যদিও কয়েক সপ্তাহ পূর্বে আরেক বিশ্ববিখ্যাত ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্পাস ক্রিস্টি কলেজ তার ভর্তির আবেদন প্রত্যাখ্যান করেছিল। এমআইটি’র পর ইউসুফের কাছে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়েও ভর্তির অফার আসে। এমআইটিতে ভর্তির সুযোগ পেয়ে খুশিতে আত্মহারা। ইউসুফ জানান, গত জানুয়ারিতে ক্যামব্রিজ থেকে যখন প্রত্যাখ্যাত হই, তখন আমি মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়ি। আমার স্বপ্ন ছিল জীবন পরিবর্তন করতে পারে এমন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার।

এমআইটিতে ভর্তির সুযোগ পেলে বিভিন্ন ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম ইউসুফের সাক্ষাতকার নেন। সেখানে তিনি জানান, সত্যি বলতে কি আমি ভাবতে পারিনি যেখানে ব্রিটেনের বিশ্ববিদ্যালয়ে আমি ভর্তির সুযোগ পাইনি সেখানে কিভাবে আমেরিকার বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারব। তিনি আরো বলেন, এরপর এমআইটি থেকে অফার আসে, আসে হার্ভার্ড থেকেও। এটি আমার কাছে অবিশ্বাস্য মনে হয়েছে, আমি এখনো বিশ্বাস করতে পারছি না। ইউসুফ আরো বলেন, বিষয়টি আমার এবং আমাদের পরিবারের জন্য লটারি জিতার মতো একটা ব্যাপার হয়ে গেছে।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে একই কলেজ থেকে আরেক ব্রিটিশ বাংলাদেশি তাফসিয়া সিকদার ভর্তি হয়েছিলেন এমআইটিতে। তাকে দেখেই অনুপ্রাণিত হয়েছেন ইউসুফ। তিনি বলেন, ‘যখন আমি জানলাম এই কলেজ থেকেই তাফসিয়া এমআইটিতে ভর্তির সুযোগ পেয়েছে আমি ভাবলাম আমি কেন পারবো না ?’ তারা দুইজনে বিশ্বখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পাওয়ায় পিছিয়ে থাকা পূর্ব লন্ডনের অন্যান্য শিক্ষার্থীদের উদ্বুদ্ধ করবে বলে মনে করেন ইউসুফ।

নিউহ্যাম কলেজিয়েট সিক্সথ ফর্ম কলেজের প্রিন্সিপাল মোহসিন ইসমাইল জানান, এটা আমাদের নতুন যুগের সূচনা। আমরা চাই আমাদের শিক্ষার্থীরা অনেক বড় স্বপ্ন দেখুক। এমআইটি থেকে জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান, ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জিয়ান নেতানিয়াহুসহ অনেক বিজ্ঞানী ও রাষ্ট্রনায়ক ডিগ্রী নিয়েছেন। পূর্ব লন্ডনের অলগেইট ইস্ট এলাকায় মা সাফিয়া বেগম ও ছোট বোন সাইফ তারিক ও ভাই মাহির আহামেদের সাথে বসবাস করেন ইউসুফ। ইউসুফের বাবা ১৯৭৩ সালে ব্রিটেন আসেন আর তার মা আসেন ১৯৯৮ সালে । অপটিশিয়ান রিসিপশনিস্ট হিসাবে কাজ করেন তার মা।


আরো সংবাদ




astropay bozdurmak istiyorum