১৬ আগস্ট ২০১৮

ভারতকে জাহাজ তৈরিতে প্রযুক্তি দেবে ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড

-

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ সরকারের জাহাজ নির্মাণকারী সংস্থা শালিমার ওয়ার্কস লিমিটেডের সাথে বাংলাদেশের অন্যতম বৃহত্তম জাহাজ নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড লিমিটেডের একটি এমওইউ স্বারিত হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গ সরকার ভারতের ‘জাতীয় নদী পথ এক’-এ আগামী দশ বছর ৬০টি জাহাজ চলাচলের ল্যমাত্রা নিয়েছে। সে ল্যমাত্রা বাস্তবায়নের জন্যই দু’টি প্রতিষ্ঠান যৌথভাবে চুক্তিবদ্ধ হয়ে কাজ করবে।
সম্প্রতি কলকাতায় এক বিশেষ আয়োজনের মধ্যদিয়ে রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী, পরিবহন সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে বাংলাদেশের ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার মো: সাখাওয়াত হোসেন এবং শালিমার ওয়ার্কস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোমদেব চট্টোপাধ্যায় এই সমঝোতাচুক্তিতে স্বার করেন।
কলকাতা থেকে হলদিয়া ভায়া ফারাক্কা বারানসি পর্যন্ত ভারতের ‘জাতীয় নদী পথ এক’ সচল করতে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ইতিবাচক ভূমিকা নিয়েছেন। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের ডেপুটি হাইকমিশনার তৌফিক হাসান ও ওয়েস্টর্ন মেরিন শিপইয়ার্ড লিমিটেডের পরিচালক ক্যাপ্টেন ফজলে রাব্বী উপস্থিত ছিলেন।
প্রসঙ্গত, ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার দেশটির জাতীয় চারটি নদী পথে আগামী ১০ বছরে ৬০০টি জাহাজ নামানোর ল্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। সে ল্যমাত্রার অংশ হিসেবে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের ‘জাতীয় নদী পথ এক’-এ ৬০টি জাহাজ চালাবে রাজ্য সরকার।
ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার মো: সাখাওয়াত হোসেন বলেন, রাজ্য সরকারের শালিমারের সাথে যে এমওইউ স্বারিত হয়েছে সেটা ভারতের জাতীয় অভ্যন্তরীণ নদী পথ কর্তৃপরে দেয়া ওই বিশাল প্রকল্পের টেন্ডারের অংশ নেয়ার একটা গুরুত্বপূর্ণ ধাপ অতিক্রম করেছে। পশ্চিমবঙ্গের শালিমারের সাথে বাংলাদেশের তার প্রতিষ্ঠানের ২৬:৭৪ শতাংশ হিসাবে অংশীদারিত্ব থাকবে। ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড মূলত প্রযুক্তি বিনিয়োগ করবে। পরিকাঠামো দেবে শালিমার। ৬০০ থেকে দুই হাজার ৫০০ টনের জাহাজগুলোর একেকটি জাহাজ নির্মাণে পাঁচ থেকে ২০ কোটি টাকা খরচ হবে।

 


আরো সংবাদ