১৬ আগস্ট ২০১৮

চট্টগ্রামস্থ চকরিয়া সমিতির ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত

-

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মোমিনুর রশিদ আমিন বলেছেন ভালো সমাজকর্মের মাধ্যমে চকরিয়া সমিতি নিজেদের অবস্থান তৈরি করে দেশ ও জাতির কাছে পরিচিতি লাভ করেছে। এটি এমনিতেই সম্ভব হয়নি। কিছু গুণী মানুষের অকান্ত পরিশ্রমে এই সংগঠন সেবামূলক প্রতিষ্ঠান হিসেবে মানুষের অন্তরে স্থান করে নিয়েছে।
তিনি গত ৮ জুন সংগঠনের উদ্যোগে বন্দরনগরী চট্টগ্রামের স্মরণিকা কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত চট্টগ্রামস্থ চকরিয়া সমিতির ইফতার ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কথা বলেন। চকরিয়া সমিতি চট্টগ্রামের সভাপতি কমরু উদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বায়তুশ শরফ আদর্শ কামিল (অনার্স-মাস্টার্স) মাদরাসার প্রিন্সিপাল ড. মাওলানা সাইয়্যেদ মোহাম্মদ আবু নোমান প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য পেশ করেন। বান্দরবানের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্র্রেট মোহাম্মদ আজিজুল হক, সন্দীপ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নুরুল হুদা ও চট্টগ্রাম জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ ওমর ফারুক বিশেষ অতিথি ছিলেন। সমিতির সাধারণ সম্পাদক এম হামিদ হোছাইনের সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সমিতির প্রধান উপদেষ্টা আনোয়ার হোসেন, সালাহ উদ্দিন আহমদ, চকরিয়া উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান রেজাউল করিম, আতাউল হক, হাফেজ মোহাম্মদ আমান উল্লাহ, সমিতির সাবেক সভাপতি রহিম উল্লাহ, সেতারা গাফফার চৌধুরী, সমিতির সহসভাপতি অধ্য ড. মোহাম্মদ সানা উল্লাহ প্রমুখ। প্রধান আলোচক ড. অধ্য সাইয়্যেদ আবু নোমান বলেন মাহে রমজান আমাদের জন্য মহা মূল্যবান। এই মাসের এবাদত আল্লাহর কাছে বেশি পছন্দনীয়। এই রমজান মাসে পবিত্র আল কুরআন নাজিল হয়। রমজান মাসে অন্য নবীদের ওপরও আসমানি কিতাব নাজিল হয়। রোজা রেখে মানবজাতি নিজেদের পাপ মোচন করতে না পারাটা বড়ই দুর্ভাগ্যের পরিচয়।


আরো সংবাদ