১৬ আগস্ট ২০১৮
হিউম্যান রিসোর্স কোর্স

ইডিইউ-বিএসএইচআরএম আনুষ্ঠানিক এমওইউ স্বাক্ষর

-

মানবসম্পদ বিভাগে কাজ করার আগ্রহ এখন দেশের হাজার তরুণের। হবে না-ই বা কেন? আধুনিক বিশ্বের সঙ্গে খাপখাইয়ে এগিয়ে যাচ্ছে দেশগুলো। বাড়ছে ক্যারিয়ার ও নিজেকে মেলে ধরার দারুণ সুযোগ।
রাজধানী ঢাকায় কিছু প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠলেও চট্টগ্রামে এখনো মানবসম্পদ উন্নয়নে ভালো মানের সংগঠন সেভাবে গড়ে ওঠেনি। তরুণ-তরুণীদের চাহিদা ও তাদের বিভিন্ন ধরনের প্রশিণের মাধ্যমে দ হিসেবে গড়ে তোলার বিষয়টি সামনে রেখে চট্টগ্রামে যৌথভাবে এগিয়ে এসেছে ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটি (ইডিইউ) ও বাংলাদেশ সোসাইটি ফর হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট (বিএসএইচআরএম)। সম্প্রতি চট্টগ্রাম নগরীর খুলশীর পূর্ব নাসিরাবাদের নোমান সোসাইটির ইডিইউর স্থায়ী ক্যাম্পাসে এ উপলক্ষে অনুষ্ঠিত হলো ‘অ্যাডভান্সড সার্টিফিকেট কোর্স লিডিং টু পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা ইন হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট’ শীর্ষক দুই পে জমজমাট মেমোরেনডাম অব অ্যাগ্রিমেন্ট (এমওএ) সাইনিং অনুষ্ঠান। এতে বাংলাদেশ সোসাইটি ফর হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট চট্টগ্রামের প থেকে চেয়ারম্যান ড. ফরিদ এ সোবহানী ও ইডিইউর প থেকে যৌথ কার্যক্রম পরিচালনায় স্বার করেন ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার সজল বড়–য়া।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন বিএসএইচআরএমের প্রেসিডেন্ট মো: মোশারফ হোসেন, চট্টগ্রামের ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলমগীর, জেনারেল সেক্রেটারি আরিফ আহমদ, ট্রেজারার নোমান বিন জাহির উদ্দিন, জয়েন্ট সেক্রেটারি সাইদুর রহমান মিন্টু, ইসি মেম্বার মোহাম্মদ আরিফ উল্লাহ, এমরানুল হক, ইডিইউর অ্যাসোসিয়েট ডিন ড. মোহাম্মদ রকিবুল কবির, ডিরেক্টর প্ল্যানিং অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট শাফায়েত চৌধুরী প্রমুখ। অনুষ্ঠানে ড. ফরিদ এ সোবহানী তার বক্তব্যে বলেন, এ ধরনের উদ্যোগের মাধ্যমে চট্টগ্রামে হিউম্যান রিসোর্স নিয়ে যারা ক্যারিয়ার গড়তে আগ্রহী তাদের সুবর্ণ সুযোগ সৃষ্টি হলো। তিনি আরো বলেন, যেকোনো প্রতিষ্ঠানের সাফল্য ও উন্নয়ন যেমন নির্ভর করে দ জনশক্তির ওপর, তেমনি প্রতিযোগিতামূলক বাজারে পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধিরও কোনো বিকল্প নেই। ইডিইউর অ্যাসোসিয়েট ডিন ড. মোহাম্মদ রকিবুল কবির শুভেচ্ছা বক্তব্যে বলেন, মানবসম্পদ উন্নয়নে দীর্ঘ দিন ধরে চট্টগ্রামে একটা শূন্যতা ছিল। ভালো প্রতিষ্ঠান, প্রশিক, সিলেবাসসহ যুগোপযোগী সিদ্ধান্তের অভাব থাকায় তরুণেরা পেছনে পড়েছিলেন এত দিন। এ ধরনের কার্যক্রম তাদেরকে মানবসম্পদ শাখায় পেশা গড়তে অনেক বেশি উৎসাহিত করবে।

 


আরো সংবাদ