২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

মহিলাজনিত ফিস্টুলার চিকিৎসা বিনামূল্যে রাজধানীতে

-

৩২ বছর পর ডাক্তার ভাইঝি নিয়ে এলেন ফুফুর চিকিৎসা করাতে। এই ৩২ বছরের রহিমা (ছদ্মনাম) তার ঘরে কাউকে ঢুকতে বা থাকতে দিতেন না। এ নিয়ে তাকে সহ্য করতে হয়েছে অনেক অপমান। বাড়িতে বিয়ের অনুষ্ঠানে এসে অন্য ঘরে জায়গা না পেয়ে তার ভাইঝি জোর করে ফুফুর ঘরে ঘুমাতে এসে পান প্রস্রাবের গন্ধ। তারপর তিনি ফুফুর সাথে কথা বলে বুঝতে পারেন তার ফিস্টুলা হয়েছে। তাকে ঢাকায় এনে চিকিৎসা করান তার ভাইঝি। সম্পূর্ণ বিনা খরচে এই রোগের চিকিৎসা করা হচ্ছে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে।
মহিলাজনিত ফিস্টুলা হলো মাসিকের রাস্তার সাথে মূত্রথলি অথবা মলাশয়ের এক বা একাধিক অস্বাভাবিক ছিদ্র হয়ে যুক্ত হওয়া যার ফলে মাসিকের রাস্তা দিয়ে সবসময় পায়খানা বা প্রস্রাব অথবা উভয়ই ঝরতে থাকে। দীর্ঘস্থায়ী বা বাধাগ্রস্ত প্রস্রাবের কারণে বা তলপেটে, যোনিপথে বা জরায়ুতে অপারেশনের সময় অসাবধানতায় ফিস্টুলা হতে পারে।
রোগ হওয়ার সাথে সাথে ধরা পড়লে এবং সহজ ধরনের ফিস্টুলা হলে ক্যাথেটার ব্যবহার করে চিকিৎসা করা যায়। তবে সাধারণত এ ধরনের সমস্যা দরিদ্র মহিলাদের হয়ে থাকে আর রোগীরা বেশির ভাগ ক্ষেত্রে তাদের সমস্যাটাকে লুকিয়ে রাখার চেষ্টা করেন। এ কারণে সমস্যা জটিল হয়ে যায় এবং অপারেশনের প্রয়োজন হয়।
রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ^বিদ্যালয়, আদ-দ্বীন হাসপাতাল, ডা: মুত্তালিব হাসপাতাল, মামস হাসপাতালে সম্পূর্ণ বিনা খরচে রোগীর চিকিৎসা করা হয়। এমনকি ফিস্টুলা কেয়ার প্লাস প্রকল্পের মাধ্যমে রোগী এবং তার সাথের একজনের যাতায়াত খরচ থেকে শুরু করে সব ধরনের খরচ দেয়া হয়। এ ছাড়া কুমুদিনী হাসপাতাল টাঙ্গাইল, ল্যাম্ব হাসপাতাল দিনাজপুর ও আদ-দ্বীন খুলনায়ও সম্পূর্ণ ফ্রি চিকিৎসা করা হয়।
একজন মহিলার ফিস্টুলা হলে তার মাসিকের রাস্তা দিয়ে সব সময় প্রস্রাব ঝরতে থাকে। তাদের শরীর থেকে তীব্র গন্ধ বের হয়। স্বামী, সন্তান, পরিবার এক কথায় পুরো সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করেন তারা। সাতক্ষীরায় এক রোগীর সন্ধান পওয়া যায় তিনি গোয়াল ঘরে থাকতেন। আমাদের চার পাশে এ ধরনের রোগীর সন্ধান পেলে ০১৭৩৬১৬১৮১৩ এই নম্বরে যোগাযোগ করলে তারা সব ধরনের সহায়তা দেবে।

 


আরো সংবাদ

Hacklink

ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme